advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অস্ত্র ঠেকিয়ে নারীকে গণধর্ষণ, বাধা দেওয়ায় স্বামীকে কুপিয়ে আহত!

অনলাইন ডেস্ক
৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৯:০৯ | আপডেট: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৯:০৯
প্রতীকী ছবি।
advertisement

অটোরিকশায় করে বাড়ি ফিরছিলেন এক দম্পতি। হঠাৎ তাদের সামনে এসে পড়েন চার যুবক। পরে স্বামীকে আটকে রেখে তার সামনেই ওই নারীকে গণধর্ষণ করেন ওই যুবকরা। এ কাজে বাধা দেওয়ায় ওই নারীর স্বামীকে কুপিয়ে আহত করা হয়।  

গত শনিবার রাতে ভারতের উত্তরপ্রদেশের আমরোহায় এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার ওই নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করেছে পুলিশ। উসমান, ইমামুদ্দিন, রশিদ ও রিয়াজুল নামে ওই চার যুবককে খুঁজছে পুলিশ।

ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময়’র প্রতিবেদনে বলা হয়, শনিবার বিজনরের চাঁদপুরায় ডাক্তার দেখিয়ে আমরোহার কুয়াখেরা গ্রামে নিজেদের বাড়িতে ফিরছিলেন ওই দম্পতি। কুয়াখেরা গ্রামের কাছে আসতেই গ্রামের উসমান, ইমামুদ্দিন, রশিদ ও রিয়াজুল তাদের অটোরিকশা থামায়। রিকশাচালকে লুট করে তাকে হত্যার ভয় দেখালে তিনি পালিয়ে যান।

পরে পাশের একটি মাঠে নিয়ে গিয়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে ওই নারীকে গণধর্ষণ করে চার যুবক। এ সময় তার স্বামীকে তারা আটকে রাখে। যদিও তিনি স্ত্রীকে বাঁচাতে চেষ্টা করছিলেন। দুর্বৃত্তরা বিরক্ত হয়ে তাকে কুপিয়ে আহত করেন।

ওই নারী জানান, ঘটনার সময় স্বামী-স্ত্রী চিৎকার শুরু করলে আশপাশ থেকে লোকজন এগিয়ে এলে পালিয়ে যায় ওই চারজন। পরে ওই লোকজন মিলে তাদের দুজনকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

আমরোহার পুলিশ সুপার বিপিন টাডা জানান, গণধর্ষণের শিকার নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ওই নারীর স্বামী আহত হয়েছেন, তার হাতে কোনো ‍গুলি মেলেনি।

advertisement