advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দুদক কমিশনার সেজে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তদবির করে ধরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০৩
advertisement

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজন পছন্দের প্রার্থীকে নিয়োগ পাইয়ে দিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কমিশনার ড. মোজাম্মেল হক খান পরিচয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালকে ফোন দেন এক ব্যক্তি। তার অনুরোধ ছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনকে এ বিষয়ে ফোন দেন। কিন্তু ড. মোজাম্মেল হক খানের নাম শুনে বিভ্রান্তিতে পড়েন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। কারণ তিনি একসময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব ছিলেন। বিষয়টি নিশ্চিত হতে তাকে ফোন দিয়ে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পারেন মন্ত্রী। এর পরই প্রতারককে ধরতে মাঠে নামে পুলিশ।

এরই মধ্যে দুদক কমিশনার পরিচয় দেওয়া প্রতারক মাহমুদুল হাসান সুমনকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিবি)। গ্রেপ্তারের পর গতকাল বুধবার দুপুরে তাকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু এ বিষয়ে বলেন, ‘দুদক কমিশনার মোজাম্মেল হক খান পরিচয় দিয়ে একজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন করে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীকে ফোন করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজনকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে তদবির করার অনুরোধ জানায় ওই ব্যক্তি। ড. মোজাম্মেল হক খান একসময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার কণ্ঠ মন্ত্রীর চেনা। এ কারণেই প্রতারক সহজে ধরা পড়ে। তাই মোবাইল নম্বরটি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দিলে তারা ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে।’ তিনি আরও বলেন, ‘প্রতারক মাহমুদুল হাসান সুমনের সঙ্গে থাকা জাতীয় পরিচয়পত্রে দেখা গেছে, তার বাড়ি লক্ষ্মীপুর সদরে। অন্য এক পরিচয়পত্রে নিজেকে যুক্তরাষ্ট্রের ‘রিগ্যান ইনভেস্টিগেশনস’ নামে একটি সংস্থার বাংলাদেশের প্রধান ইনভেস্টিগেটর হিসেবে উল্লেখ করেছে। একই সঙ্গে প্রাইভেট ইনভেস্টিগেটর বলে পরিচয়পত্রে উল্লেখ করা হয়।’

advertisement