advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

তানিয়াকে বাঁচানো গেল না

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:৪২
advertisement

আগুনে মারাত্মক দগ্ধ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফের স্ত্রী তানিয়া ইশরাতকে (৪০) বাঁচানো গেল না। গত বুধবার সন্ধ্যায় উত্তরার নিজ বাসায় মানসিকভাবে অসুস্থ তানিয়া নিজের শরীরে আগুন দেন বলে দাবি করেছে তার পরিবার ও পুলিশ। তবে লাশের ময়নাতদন্তকারী ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ বলেছেন, ভিসেরা পরীক্ষার জন্য মরদেহের নমুনা পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর তানিয়ার মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় আগুনে মারাত্মক দগ্ধ হওয়ার পর তানিয়াকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়। গতকাল সকাল ১০টার দিকে সেখানেই তিনি মারা যান। রাতে তানিয়ার মরদেহ রাজধানীর বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়। লাশের ময়নাতদন্ত শেষে ঢামেকের চিকিৎসক সোহেল মাহমুদ জানান, আগুনে তানিয়ার হাঁটু থেকে মাথা পর্যন্ত

গোটা অংশই পুড়ে গিয়েছিল।

উত্তরা মডেল থানার ওসি নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, বুধবার সন্ধ্যায় উত্তরা ছয় নম্বর সেক্টরের চার নম্বর সড়কের বাসায় দুদক পরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফের বাসায় আগুন লাগে। ৬ তলা বাড়িটির দোতলায় আগুন লাগার খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যায় ফায়ার

সার্ভিস। কিন্তু তারা পৌঁছানোর আগেই বাড়ির লোকজন আগুন নিভিয়ে ফেলে। আগুনে মোহাম্মদ ইউসুফের স্ত্রী দগ্ধ হলে রাতেই তাকে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। নিহতের পরিবারের সদস্যরা বলছেন, তানিয়া মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। আত্মহত্যার জন্য তিনি নিজেই শরীরে আগুন দিয়েছেন। এর আগেও তিনি এ রকম চেষ্টা করেছিলেন। তানিয়ার পরিবার ও তার স্বামীর পক্ষ থেকে এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তবে তিনি আত্মহত্যা করেছেন কিনা এখনই তা নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছে না। আমরা অগ্নিকা- ও তার মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখছি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

এদিকে স্ত্রীর মৃত্যুর বিষয়ে জানতে দুদক পরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি সাড়া দেননি। দুদক পরিচালক হিসেবে মোহাম্মদ ইউসুফ সহকর্মীদের কাছে একজন সৎ কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও তিনি বেশ সমাদৃত। দুদকে আসার আগে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকাকালে সেখানকার অনিয়ম রোধ ও শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে তার কার্যকর ভূমিকা এবং সাধারণ জীবনযাপনের জন্য মোহাম্মদ ইউসুফ বেশ আলোচিত।

advertisement