advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

৩ মাসের মধ্যে তালিকাভুক্ত না হলে লাইসেন্স বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:৫৯
advertisement

যেসব বীমা কোম্পানি শেয়ারবাজারে এখনো তালিকাভুক্ত হয়নি, সেগুলো তিন মাসের মধ্যে তালিকাভুক্ত না হলে লাইসেন্স বাতিলের আলটিমেটাম দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, তিন মাসের মধ্যে যেসব কোম্পানি তালিকাভুক্ত হতে পারবে না, তাদের লাইসেন্স সাময়িক বাতিল করা হবে। তার পর কয়েকটি কোম্পানিতে একীভূত হওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। তার পরও শেয়ারবাজারে আসতে না পারলে লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

গতকাল রবিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকক্ষে বীমা প্রতিষ্ঠানগুলোর চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি মিলে ৭৮টি লাইফ ইন্স্যুরেন্স এবং নন লাইফ ইন্স্যুরেন্স আছে। এর মধ্যে শেয়ারবাজারে

তালিকাভুক্ত রয়েছে ৪৭টি। বাকি ৩১টি শেয়ারবাজারের বাইরে রয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, বীমা খাতের উদ্যোক্তারা দেশের সব ফ্ল্যাট এবং আবাসিক ও অনাবাসিক ভবন বীমার আওতায় আনার যে দাবি জানিয়েছেন, সেটিও ধীরে ধীরে বাস্তবায়ন করা হবে। উন্নত বিশ্বে শুধু মানুষ ও প্রোপার্টি নয়, অনেক প্রাণীরও ইন্স্যুরেন্স থাকে। আমাদের অর্থনীতিকে আরও শক্তিশালী করে দেশকে একটি টেকসই অবস্থানে নিতে বীমা খাতকে অবশ্যই আশানুরূপ জায়গায় নিতে হবে। বীমা খাতের উন্নয়নের লক্ষ্যে আমাদের দুর্ঘটনা ইন্স্যুরেন্স কাভার করতে হবে।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, যে গাড়িতে অফিসে যাবে, সেই গাড়ির ইন্স্যুরেন্স করতে হবে। উঁচু হোক আর নিচু বিল্ডিং হোক প্রত্যেকটির শতভাগ ইন্স্যুরেন্সের আওতায় আসতে হবে। এর মধ্য দিয়ে দেশের অর্থনীতিও একটি টেকসই অবস্থানে পৌঁছে যেতে পারবে। এ খাতে মানবসম্পদ উন্নয়ন বাড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্কলারশিপ দিয়ে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে বিদেশ পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। এখন আমরা ইন্স্যুরেন্স খাত থেকে সুবিধা নিতে চাই। সবাই যেন লাভবান হয় সেই ব্যবস্থা করতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, বীমার প্রিমিয়াম আদায়কারী মাঠকর্মীকে সর্বোচ্চ ১৫ শতাংশের বেশি কমিশন দেওয়া যাবে না বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। যারা এ সিদ্ধান্ত অগ্রাহ্য করবে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গ্রাহকের কাছ থেকে প্রিমিয়াম নেওয়ার সময় বাড়তি অর্থ আদায় করা যাবে না। যদি কেউ বাড়তি আদায় করেন তা হলে তাদের লাইসেন্স পর্যন্ত বাতিল হতে পারে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী বছর ১ মার্চ বীমা দিবস পালন করা হবে। এর পর প্রতিবছর এটি পালন করা হবে।

বৈঠকে বীমা নিয়ন্ত্রণ সংস্থার (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারী এবং বাংলাদেশ বীমা অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ কবির হোসেনসহ বীমা কোম্পানিগুলোর এমডি ও চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।

advertisement
Evall
advertisement