advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নেতাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ : যুবলীগ চেয়ারম্যান কিছুই জানেন না

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৩:০০
যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

সপ্তাহের ব্যবধানে গণভবনে অনুষ্ঠিত আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের দুটি বৈঠকে যুবলীগের কয়েক নেতাকর্মীর নামে একাধিক অভিযোগ উঠলেও এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে দাবি করেছেন যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী।

তিনি গতকাল আমাদের সময়ের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, যুবলীগের কোনো নেতাকর্মীর বিষয়ে কোনো অভিযোগ উঠলে নেত্রী আমাকে জানাতেন। কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ামাত্রই তদন্তসাপেক্ষে আমি সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেব। কিন্তু এখনো পর্যন্ত নেত্রী আমাকে কিছুই জানাননি। তা হলে আমি কীসের ভিত্তিতে নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে যুবলীগের কয়েকজন নেতার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। যুবলীগ নেতাদের ক্যাসিনো ব্যবসা, অস্ত্রবাজি, চাঁদাবাজির প্রসঙ্গটি সামনে এনে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা যুবলীগের নিয়ন্ত্রক বলে পরিচিত আওয়ামী লীগের এক সভাপতিম-লীর সদস্যের উদ্দেশে বলেন, আপনারা যারা ক্যাডার লালন-পালন করেন এগুলো বন্ধ করুন। আমি কোনো অস্ত্রবাজ-চাঁদাবাজকে দলে চাই না।

এ বৈঠকের বরাত দিয়ে সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিষয়ে জানতে চাইলে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, এটি আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক ছিল। এই বৈঠকে যৌক্তিক কারণেই আমি অনুপস্থিত ছিলাম। কাজেই কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে কী আলোচনা হয়েছে সে বিষয়ে আমি অবগত নই। তবে আমি বিশ্বাস করি, আওয়ামী যুবলীগের কোনো নেতার কর্মকা-ে যদি প্রধানমন্ত্রী ক্ষুব্ধ হন সে ব্যাপারে তিনি নিশ্চয় আমাকে জানাবেন এবং তার নির্দেশনা অনুযায়ী পদক্ষেপ নেব। কিন্তু এখন পর্যন্ত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে কোনো নির্দেশনা পাইনি। শুধু দুয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে কোনো মন্তব্য করা আমার জন্য সমীচীন নয়।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এ বিষয়ে গতকাল বলেন, যেসব নেতার বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ প্রধানমন্ত্রীর কাছে গেছে, তারা কেউ-ই ছাড় পাবে না। তবে সবার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে না। অনেকের বিরুদ্ধে প্রশাসনিকভাবে ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। নেতাকর্মীদের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব সংস্থার পাশাপাশি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিবেদনও দলীয় প্রধানের কাছে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

advertisement