advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অশান্তির কারণে মেয়েকে নিয়ে ট্রেনের নিচে মায়ের ঝাঁপ

নীলফামারী প্রতিনিধি
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০১:৩২
advertisement

নীলফামারীতে তিন বছরের মেয়ে বৃষ্টি আক্তারকে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে পারিবারিক অশান্তি থেকে চিরদিনের জন্য মুক্তি নিলেন টুলটুলি বেগম (২৩)। গতকাল সোমবার সকালে জেলা সদরের সোনারায় ইউনিয়নের দারোয়ানী রেলস্টেশনের কাছে এ ঘটনা ঘটে। সৈয়দপুর জিআরপি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফিরোজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
টুলটুলি বেগম ধনীপাড়া গ্রামের তারেক হোসেনের স্ত্রী। ছয় বছর আগে তাদের বিয়ে হয়।
স্থানীয় সূত্র জানায়, সকাল ৭টার দিকে খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী আন্তনগর সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে মেয়েকে নিয়ে ঝাঁপ দেন টুলটুলি। এ ঘটনায় সৈয়দপুর রেলওয়ে থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। রেলওয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।
টুলটুলির ভাই দুলাল হোসেন অভিযোগ করেন, তার বোনজামাই তারেক মাদকাসক্ত। প্রায়ই সে তার বোনের ওপর নির্যাতন করত। সর্বশেষ গত রবিবার রাতে টুলটুলির একটি কানের দুল তারেক বিক্রি করে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে তারেক মারধর করে টুলটুলিকে। এর জের ধরে ভাগনিকে নিয়ে সে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেয়।
এদিকে টুলটুলির শ্বশুর হামিদুল ইসলাম জানান, রাতে তার ছেলের সঙ্গে পুত্রবধূর কথা-কাটাকাটি হয়। গতকাল সকালে বউমা বাবার বাড়ি যাওয়ার কথা বলে মেয়েকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। পরে তাদের মৃত্যুর খবর পান তিনি। তবে তিনি দাবি করেন, তার ছেলে মাদকাসক্ত নয়।
সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা কামাল বলেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে তিন বছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে টুলটুলি বেগম ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে মারা যান।

advertisement