advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ইরানে হামলার ইঙ্গিত ট্রাম্পের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:৫১
advertisement

মিত্র দেশ সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে হামলার পাল্টা জবাব দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্র পুরোপুরি প্রস্তুত আছে। এমন হুশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সৌদির রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত কোম্পানির মালিকানাধীন দুটো তেলক্ষেত্রে হামলার পেছনে ইরান দায়ী বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র। এ বিষয়ে তাদের কাছে প্রমাণাদি আছে বলে ওয়াশিংটন দাবি করেছে। কিন্তু ইরানের নাম না নিয়ে দেশটিকে হামলার ‘মূলহোতা’ বলে টুইটারে অভিহিত করেছেন ট্রাম্প। দ্য গার্ডিয়ান।

ট্রাম্প টুইট করেছেন, ‘নিশ্চিত হওয়ার পরই আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত আছি। অপেক্ষা করছি সৌদি আরবের কাছ থেকে শোনার জন্য যে হামলার জন্য তারা কাকে দায়ী করছে এবং আমরা কী শর্তে আগাব।’

এদিকে তেল স্থাপনায় ড্রোন হামলা নিয়ে উত্তেজনার মধ্যেই উপসাগর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি জাহাজ আটক করেছে ইরান। সোমবার ইরানের আধাসরকারি বার্তা ইসনা জানায়, ইরানের বিপ্লবী গার্ডস বাহিনী আড়াই লাখ লিটার ডিজেল পাচারের অভিযোগে এই আমিরাতি নৌযানকে আটক করেছে।

মনুষ্যবিহীন উড়োযান (ড্রোন) দিয়ে আরামকো কোম্পানির আবকাইক ও খুরাইস তেল শোধনাগারে হামলা চালানো হয়। আবকাইকের তেল শোধনাগারটি বিশ্বের বৃহত্তম এবং খুরাইস হচ্ছে সৌদি আরবের দ্বিতীয় বৃহত্তম তেলক্ষেত্র। শনিবারের এ হামলার দায় স্বীকার করেছে ইয়েমেনের সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুতি। তবে তাদের এত উন্নত ড্রোন প্রযুক্তি নেই বলে এবং হামলা যেদিক থেকে এসেছেÑ এসব বিবেচনায় নিয়ে মার্কিন প্রশাসন দাবি করছে, এ হামলা আসলে ইরানই চালিয়েছে।

কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিলেও ক্ষয়ক্ষতি কম হয়নি। সৌদির জ্বালানিমন্ত্রী প্রিন্স আবদুল আজিজ বিন সালমান রবিবার জানান, হামলার কারণে দিনে অপরিশোধিত তেলের উৎপাদন ৫৭ লাখ ব্যারেল কমেছে, যা সৌদির মোট উৎপাদনের প্রায় অর্ধেক। গতকাল বিশ্ববাজারে তেলের দাম বেড়েছে ২০ শতাংশ।

সোমবারই প্রথম এ নিয়ে মুখ খোলেন ট্রাম্প। ইরানের বিরুদ্ধে সামরিক পদেক্ষপ গ্রহণের শক্ত ইঙ্গিত গতকাল তার টুইট থেকে বোঝা গেছে।

এর আগে খবর বেরিয়েছিল যে, ট্রাম্প বিনাশর্তে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে বৈঠকে বসতে রাজি আছেন। কিন্তু নতুন এই পরিস্থিতিতে সেই খবরকে ভুয়া বলে প্রত্যাখ্যান করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেছেন, ‘আগের মতোই, এটাও একটা ভুয়া খবর।’ এর আগে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও ইরানের ওপর পাল্টা হামলা চালানোর ইঙ্গিত দেন।

advertisement