advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নিউইয়র্কে দুটি সম্মাননা পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক
১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:২৩
advertisement

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন উপলক্ষে আসন্ন যুক্তরাষ্ট্র সফরে দুটি সম্মাননা পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশে টিকাদান কর্মসূচির সাফল্যের জন্য গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাক্সিনস অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন (জিএভিআই) তাকে ‘ভ্যাকসিন হিরো’ সম্মাননায় ভূষিত করবে। আর জাতিসংঘ শিশু তহবিল (ইউনিসেফ) ‘অ্যান ইভনিং টু অনার হার এক্সিলেন্সি প্রাইম মিনিস্টার শেখ হাসিনা’ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে, যেখানে প্রধানমন্ত্রী ‘চ্যাম্পিয়ন অব স্কিল

ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ করবেন। গতকাল বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২৭ সেপ্টেম্বর সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি রোহিঙ্গা সংকটের অবসানে এর আগে জাতিসংঘে দেওয়া প্রস্তাবের ভিত্তিতে নতুন কিছু প্রস্তাব তিনি তুলে ধরবেন।

মন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন যেন হয় এবং তারা যেন রাখাইনে নিরাপদ ও সুরক্ষায় থাকে, তাদের চলাফেরায় যেন স্বাধীনতা থাকে, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কথা বলতে পারেন। তিনি সেখানে বাংলাদেশ ও ওআইসির উদ্যোগে রোহিঙ্গা শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানেও অংশ নেবেন। এই ইভেন্টে রোহিঙ্গাদের শিগগিরই নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে মুসলিম বিশ্বের সহযোগিতা ও করণীয় বিষয়ে আলোকপাত করা হবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা মিয়ানমার তৈরি করেছে এবং এর সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে। আমরা আশাবাদী, কারণ অনেক দেশ আমাদের প্রস্তাবগুলো সমর্থন করেছে, যেমনÑ চীন।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে যোগ দিতে ২২ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে পৌঁছবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই সফরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ছাড়াও কয়েকটি দেশের সরকারপ্রধানের সঙ্গে তার বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। এ বছর অধিবেশনের প্রতিপাদ্য ঠিক হয়েছেÑ ‘দারিদ্র্য বিমোচন, মানসম্মত শিক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলা ও অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নে বহুপক্ষীয় চেষ্টা জোরদারকরণ’।

জাতিসংঘ অধিবেশনের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী ইউনিভার্সেল হেলথ কভারেজ, ক্লাইমেট অ্যাকশন সামিট-২০১৯, গ্লোবাল কমিশন অন অ্যাডাপ্টেশন, সমকালীন বিশ্বে মহাত্মা গান্ধীর প্রাসঙ্গিকতা নিয়ে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য নিয়ে একটি উচ্চপর্যায়ের পলিটিক্যাল ফোরামে অংশ নেবেন। প্রতিবন্ধিতা ও মানসিক স্বাস্থ্য জটিলতার ক্ষেত্রে প্রাথমিক সেবা বিষয়ে একটি অনুষ্ঠানেও প্রধানমন্ত্রী যোগ দেবেন। এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে চীনের মধ্যস্থতায় তিনি মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে নিউইয়র্কে বৈঠকে বসবেন।

কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সম্প্রতি ফোনালাপের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা তাদের কথা শুনেছি এবং আমাদের অবস্থান জানিয়েছি। ভারতের সংসদ একটি আর্টিক্যাল (কাশ্মীর বিষয়ে) তৈরি করেছিল এবং তাদের সংসদ এটি বিলোপ করেছে। এটি তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তবে নীতিগতভাবে আমরা সবার উন্নয়ন চাই।

এবারের সাধারণ পরিষদে শিক্ষামন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, বাণিজ্যমন্ত্রী, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্টের সভাপতি প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হবেন।

advertisement