advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফাইনালে বাংলাদেশ

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ চট্টগ্রাম থেকে
১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০২:০৪
advertisement

বরাবরের মতো এবারও ক্রিকেট প্রেমীদের হতাশ করেনি বন্দরনগরী চট্টগ্রাম। বিশ্বকাপের মঞ্চ থেকে জয়-পরাজয়ের দোলাচলে দুলতে থাকা বাংলাদেশ দল এই নগরীতে এসেই এক ম্যাচ হাতে রেখে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। গতকাল বুধবার সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে অনেকটা হেসে-খেলেই ৩৯ রানে হারিয়েছেন সাকিব-মুশফিকরা। ফলে ২৪ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে মিরপুরে ট্রফি জয়ের লড়াইয়ে নামবে টাইগাররা। এই ট্রফি জয়ের মাধ্যমে হারের বৃত্তে ঘুরপাক খাওয়া বাংলাদেশ দলের ভাগ্যও বদলাতে পারে। গতকাল সন্ধ্যা ৬টায় চট্টগ্রামের

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টসে জিতে প্রথমে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় জিম্বাবুয়ে। ব্যাট করতে নেমে লিটন দাশের কল্যাণে শুরুটা ঝড়ো হয় বাংলাদেশের। সেই ঝড় থামে লিটন ২২ বলে ৩৮ রান করার পর। নাজমুল হোসেন শান্ত (১১), অধিনায়ক সাকিব (১০) দ্রুত বিদায় নিলেও হাল ধরেন মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মুশফিক ২৬ বলে ৩২ রান করে মাতুমবোডজির বলে উইকেটের পেছনে ধরা পড়লেও রিয়াদ ছিলেন হাল ধরে দাঁড়িয়ে। রিয়াদ ৪১ বলে ৬২ রান করে আউট হন। শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ১৭৫ রান করতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের পক্ষে কাইল জারভিস নির্ধারিত চার ওভারে ৪২ রানে নেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট। এ ছাড়া এমপুফু ২ ও বার্ল এবং মাতুমবোডজি নেন একটি করে উইকেট।
ব্যাটিংয়ের মতো বল হাতেও ইনিংসের প্রথম ওভার থেকেই দুর্দান্ত খেলতে থাকেন টাইগাররা। শেষ পর্যন্ত ১৩৬ রানে ইনিংসের শেষ বলে শেষ উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। অবশেষে ৩৯ রানের জয় নিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। শফিউল দুই বছর পর টি-টোয়েন্টি দলে ফিরে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নিয়েছেন গতকাল। নেট বোলার থেকে জাতীয় দলে জায়গা পাওয়া আমিনুল ইসলাম নিজের অভিষেক ম্যাচে চার ওভার বল করে ১৮ রান দিয়ে নেন দুই উইকেট। এ ছাড়া মোস্তাফিজ নেন দুই উইকেট। এই দুই উইকেট নিয়ে তিনি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৫০ উইকেট নিলেন। তার আগে এই কৃতিত্ব অর্জন করেন একমাত্র সাকিব আল হাসান। সাকিবের উইকেট সংখ্যা ৯১টি। একটি করে উইকেট জমা হয় সাইফউদ্দিন ও সাকিবের ঝুলিতে। ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার ওঠে মাহমুদউল্লাহর হাতে।
আগের ম্যাচের একাদশ থেকে তিন পরিবর্তন নিয়ে নামে বাংলাদেশ। সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার ও তাইজুল ইসলামের পরিবর্তে একাদশে জায়গা হয় নাজমুল হোসেন শান্ত, শফিউল ইসলাম ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের। শান্ত-বিপ্লবের অভিষেক হয় এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে।
ম্যাচ শেষে অধিনায়ক সাকিব এই জয়ের কৃতিত্ব অবশ্য বেশি দিয়েছেন বোলারদেরই। তিনি বলেন, ‘ব্যাটিংয়ে ভালো শুরু পেয়েছিলাম; কিন্তু প্রত্যাশামতো শেষ করতে পারিনি। তবে বোলাররা দুর্দান্ত ছিল, ফিল্ডাররাও ভালো করেছেন।

 

advertisement