advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সঞ্জুর পক্ষেই সম্ভব

বিনোদন সময় ডেস্ক
১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০১:০৭
advertisement

Ñ দাদু, মানুষকে মেরে ফেলা তো ভালো না, তাই না?

Ñ হ্যাঁ, খুব খারাপ।

Ñ তা হলে রাবণকে রাম কেন মেরে ফেলল?

Ñ কারণ রাবণ তো ভালো না।

Ñ কিন্তু কাউকে মেরে ফেলাও তো ভালো না!

এই ছিল ‘প্রস্থানাম’ ছবির ট্রেলারের প্রথম বাক্যালাপ। আগামীকাল ভারতজুড়ে মুক্তি পাচ্ছে সঞ্জয় দত্ত, মনীষা কৈরালা, জ্যাকি শ্রফ, চাঙ্কি পা-ে, আলী ফজল, সত্যজিৎ দুবে অভিনীত এ ছবিটি। এতে ৬০ বছর বয়সী সঞ্জয় যেন জ্বলে উঠেছেন। তাই ‘বলিউড হাঙ্গামা’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রথমেই জানতে চাওয়া হয় তার এই ফিটনেসের রহস্য। খাওয়া আগে, না ব্যায়াম আগে? এই প্রশ্নের জবাবে বললেন, ‘দুটিই আগে। এই ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকতে হলে ফিটনেসের বিকল্প নেই। আর যারা ফিট, তাদের প্রিয় জায়গার নাম জিম। হতেই হবে। আর আমি তো সেদ্ধ খাবার খেয়েছি। প্রতিদিন তিন বেলার খাওয়া ছয় বেলায় খেয়েছি।’

তা হলে বুঝেছেন তো। ‘বাবা’র মতো ফিট থাকতে হলে কী করতে হবে। এখানে তার চরিত্র একজন রাজনীতিবিদের। মনীষা কৈরালা তার স্ত্রী আর আলী ফজল তাদের ছেলে। ছবির সব কাহিনি ঘটেছে লক্ষেèৗতে। প্রযোজনা করেছেন সঞ্জয় দত্তের স্ত্রী মান্যতা দত্ত। পরিচালক দেবা কাট্টা। এই ছবিটি তেলেগু ‘প্রস্থানাম’ ছবির রিমেক। সেই ছবিটিও তিনিই পরিচালনা করেছেন।

‘অধিকার দিলে রামায়ণ শুরু হবে, আর তা ছিনিয়ে নিলে মহাভারত’Ñ ‘প্রস্থানাম’-এর টিজার শুরুর এই সংলাপই কাহিনির প্রেক্ষাপট তুলে ধরার জন্য যথেষ্ট। জটিল এক রাজনৈতিক পরিস্থিতি। যে কাহিনিতে রাজনৈতিক ময়দানের প্রতিশোধ এবং পরম্পরা বজায় রাখার গল্প তুলে ধরা হয়েছে। এই কাহিনি ক্ষমতা, লোভ, নৈতিকতা এবং আকাক্সক্ষার। ‘প্রস্থানাম’ ছবিতে সঞ্জয় দত্তের বিপরীতে আরেক হেভিওয়েট চরিত্র হিসেবে রয়েছেন জ্যাকি শ্রফ। ফলে প্রায় একযুগ পর তাদের দুজনকে দেখা যাবে। সঞ্জয় দত্ত এবং জ্যাকি শ্রফের কাজের সম্পর্ক যেমন দীর্ঘদিনের, ঠিক তেমনি পর্দার বাইরে তাদের বন্ধুত্বও দীর্ঘদিনের। সঞ্জয়ের সঙ্গে এই বন্ধুত্বের কথা মাথায় রেখেই এই ছবিতে জ্যাকিকে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়। এটি এই জুটির ১০ নম্বর ছবি। ছবির পরিচালক দেবা কাট্টা বলেন, ‘বলিউডের এই দুই প্রবীণ অভিনেতার সঙ্গে কাজের এটা একটা বড় সুযোগ। জ্যাকি শ্রফ আর সঞ্জয় দত্ত তাদের বাস্তব জীবনের বন্ধুত্বের চেহারাটা এবার পর্দায় তুলে এনেছেন। যা দর্শকদের কাছে বেশ ভালো লাগবে।’ ছবি প্রসঙ্গে প্রযোজক মান্যতা জানান, ‘প্রস্থানম’-এর মতো একটা ভালো প্রজেক্ট দিয়েই হিন্দি ছবির প্রযোজনা শুরু করতে পেরে ভীষণ গর্বিত বোধ করছি। বেশ রোমাঞ্চকর ছবি। সঞ্জুকে এত ভালোবাসা দেওয়ার জন্য এবং সমর্থন করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ সকলকে।’ সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া ও হিন্দুস্তান টাইমস

advertisement
Evall
advertisement