advertisement
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্যারিসে ডি মারিয়া সৌরভ, মাদ্রিদে অ্যাটলেটিকোর ফেরা

ক্রীড়া ডেস্ক
১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০৩:৫৩ | আপডেট: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০৩:৫৩
advertisement

নেইমার-কিলিয়ান এমবাপ্পে-কাভানি প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের হয়ে খেলতে পারেননি। অবশ্য এতে কোনো সমস্যাই হয়নি। চ্যাম্পিয়নস লিগে ২০১৯-২০ মৌসুমের উদ্বোধনী ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া জোড়া গোল করেছেন প্যারিসে। একই রাতে মাদ্রিদে অ্যাটলেটিকো ও জুভেন্টাসের লড়াই শেষ হয়েছে ২-২ গোলে। এই ম্যাচে ২-০ গোলের লিড ধরে রাখতে পারেনি রোনালদোরা। পরবর্তীতে ২টি গোল হজম করে তারা। 

জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখ ৩-০ গোলে হারিয়েছে ভেনা ভেজদাকে। ম্যানসিটি সমান ব্যবধানে শাখতার দোনেৎস্ককে হারিয়েছে। গত মৌসুমের ফাইনালে খেলা টটেনহ্যাম ২-২ গোলে ড্র করেছে অলিম্পিয়াকোসের বিপক্ষে। 

চ্যাম্পিয়নস লিগে আবেগের এক রাত। রিয়াল মাদ্রিদের গোলরক্ষক ছিলেন নাভাস। তিনি এখন প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের গোলমুখে ছিলেন। রিয়াল মাদ্রিদের আক্রমণ তিনি প্রতিহত করেছেন। অন্যদিকে রিয়াল মাদ্রিদের গোলরক্ষক থিবাউট কুর্তোয়া গোল হজম করেছেন। এই কুর্তোয়ার জন্য রিয়াল ছাড়তে হয়েছিল তাকে। জুভেন্টাসে জোয়াও ফেলিক্স ও রোনালদো দুজনই পর্তুগালের। ফেলিক্স সেভাবে জ্বলে উঠতে না পারলেও রোনালদো গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেছেন। 

প্যারিসে ১৪ ও ৩৩ মিনিটে গোল করে পিএসজিকে এগিয়ে দেন ডি মারিয়া। গ্যারেথ বেল গোল একটা করলেও সেটা বাতিল হয়ে যায় হ্যান্ডবলের জন্য। ভিএআর দেখে গোল বাতিল করেন রেফারি। যোগ করা সময়ে টমাস মুনিয়ের পিএসজিকে আরও একটি গোল এনে দেন। 

৪৮ ও ৬৫ মিনিটে কোয়াদরাদো ও মাতুয়িদি জুভেন্টাসকে এগিয়ে দেন। অ্যাটলেটিকোর সাভিস ও হেরেরা গোল দুটি শোধ করে দিয়েছেন। রোনালদো ম্যাচ শেষ হওয়ার আগে দারুণ বল বানিয়ে নিয়ে শট নিয়েছিলেন। অ্যাটলেটিকোর গোলরক্ষক ওবলাক পরাস্তও হয়েছেন। কিন্তু বল বারের বাহির দিয়ে চলে যায়। 

ম্যানসিটির তিন গোলদাতা মাহরেজ, গুয়ানডোগান ও জেসুস। শাখতার ইংলিশ চ্যাম্পিয়নদের সাথে লড়াইয়ে পারেনি। বায়ার্ন মিউনিখের কোমান, লেভানডফস্কি ও মুলার গোল করেছেন। চ্যাম্পিয়নস লিগের শুরুটা ভালই হয়েছে বলতে হবে। 

advertisement