advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দুর্নীতি প্রতিরোধে প্রযুক্তিগত সুবিধার ঘাটতি আছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০৮
advertisement

দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, দুর্নীতি প্রতিরোধ ও অপরাধীদের চিহ্নিত করতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের বিকল্প নেই। এজন্য নিজস্ব ফরেনসিক ল্যাব ও মোবাইল ট্র্যাকিং সিস্টেম প্রয়োজন। অথচ দুদকে প্রযুক্তিগত এসব সুবিধার ঘাটতি রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদক প্রধান কার্যালয়ে কোরিয়া ইন্টারন্যাশনাল

করপোরেশন এজেন্সির (কেওআইসিএ) দুই সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুদকের সামনে যেসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা মোকাবিলার জন্য উন্নয়ন সহযোগীদের আর্থিক সহযোগিতার চেয়ে তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক জ্ঞানসংবলিত কর্মকৌশলের বেশি প্রয়োজন। দুদকের চ্যালেঞ্জগুলোর মধ্যে রয়েছে নিজস্ব সক্ষমতার ঘাটতি, কাক্সিক্ষত মাত্রার জনআস্থার অভাব, প্রযুক্তিগত দুর্বলতা, তথ্যপ্রাপ্তির দীঘসূত্রতা ও অনীহা। অপরাধীদের চিহ্নিত করা, থামিয়ে দেওয়া, প্রতিরোধ ও আইনের মুখোমুখি আনতে যে মানের প্রযুক্তির প্রয়োজন, তা দুদকের এখনো নেই।

দুদক চেয়ারম্যান আরও বলেন, মিউচুয়্যাল লিগ্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স রিকোয়েস্টের মাধ্যমে বিভিন্ন রাষ্ট্রের কাছে যেসব তথ্য চাওয়া হয় তা প্রায়ই সময়মতো পাওয়া যায় না। তথ্য না পাওয়ার কারণে অনেক গুরুত্বপূর্ণ অর্থপাচার মামলার তদন্ত শেষ করা যায় না। অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করা যায় না এবং পাচার করা সম্পদও ফিরিয়ে আনা যায় না। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে অর্থপাচার, সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন, ঘুষ লেনদেন হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য প্রযুক্তিগত সুবিধা নিশ্চিত করা জরুরি।

advertisement