advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সদর দপ্তর নির্মাণে জমি দখল

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০৮
advertisement

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) সদর দপ্তর নির্মাণে জমি দখলের অভিযোগ এনে মামলা করবে জেলা পরিষদ। গতকাল বৃহস্পতিবার জেলা পরিষদের এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার বলেন, সভার পাঁচ নম্বর সিদ্ধান্তে বলা হয়েছে, জেলা পরিষদের স্বার্থ অক্ষুণœ রাখার জন্য আইনজীবীর সঙ্গে পরামর্শ করে আদালতে মামলা দায়েরের মাধ্যমে জমি রক্ষা করা হবে। মামলা পরিচালনার জন্য জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার আলেফ আলীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, বৃহস্পতিবার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের দপ্তরে অনুষ্ঠিত সভায় সিদ্ধান্ত হয়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত জেলা পরিষদের এক নম্বর সদর ডাকবাংলোর জমিতে আধুনিক মানের আরেকটি ডাকবাংলো নির্মাণ করা হবে। তাই কোনো জমি বিক্রি করা হবে না।

এ ছাড়া জমি নিয়ে জটিলতা নিরসনে মন্ত্রণালয়ের গঠন করে দেওয়া কমিটিতে জেলা পরিষদের নির্বাচিত কোনো প্রতিনিধিকে না রাখায় সভায় ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। ওই কমিটি পুনর্গঠনের আহ্বান জানানোরও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার। অন্যদের মধ্যে প্যানেল চেয়ারম্যান-১ নাঈমুল হুদা রানা, জেলা পরিষদের সদস্য রবিউল আলম, নার্গিস বেগম, আবুল ফজল প্রামাণিক, আবদুস সালাম, মোফাজ্জল হোসেন, সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের সদস্য জয়জয়ন্তী সরকার মালতি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি রাজশাহী মহানগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে জেলা পরিষদের ৪৭ শতক জমি দখল করে আরএমপির সদর দপ্তর নির্মাণের কাজ শুরু হয়। ভেঙে ফেলা হয় জেলা পরিষদের ঐতিহ্যবাহী একটি ডাকবাংলোও। এ নিয়ে জেলা পরিষদের আপত্তির পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি মন্ত্রণালয় পর্যন্ত গড়ায়।

গেল ২২ আগস্ট স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এ জটিলতা নিরসনে একটি কমিটি গঠন করে দেয়। গত মঙ্গলবার কমিটির সদস্যরা জমি পরিমাপ করে দেখেন। সেখানে আরএমপি তাদের সীমানা ছাড়িয়ে জেলা পরিষদের ৪৭ শতক জমির ভেতরে ভবন নির্মাণ কাজ করছে বলে প্রমাণ মেলে।

ওই দিন মন্ত্রণালয় কমিটির আহ্বায়ক ও রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার নুর-উর-রহমান জানান, বিষয়টি প্রতিবেদন আকারে মন্ত্রণালয়কে জানানো হবে। পরবর্তীতে মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

advertisement