advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘ভালোভাবে শেষ করতে চাই’

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:০২
advertisement

এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপপর্বেই বিদায় বাংলাদেশের। টানা দুই ম্যাচে হেরে কোণঠাসা গোলাম রব্বানী ছোটনের দল। আজ শেষ ম্যাচ মারিয়া বাহিনীর। প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। থাইল্যান্ডের চনবুরি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টায় শুরু হবে ম্যাচটি। শেষ ম্যাচটা ভালোভাবে শেষ করাই এখন লক্ষ্য বাংলাদেশের।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই আসরে গতবার খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে বাংলার মেয়েদের। ম্যাচের ৭৭ মিনিট পর্যন্ত ২-১ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থেকেও শেষ হাসি হাসতে পারেনি। দ্রুত দুই গোল করে শেষ পর্যন্ত ম্যাচ ৩-২ ব্যবধানে জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা। ওই ম্যাচেও বাংলাদেশের বর্তমান কোচ ছোটনই ডাগআউটে ছিলেন। তবে দুই বছর আগের স্মৃতি খুব বেশি অনুপ্রাণিত করছে না লাল-সবুজদের কোচকে। নতুন ম্যাচ, নতুন দলÑ নতুন করেই সব কিছু ভাবছেন তিনি। এ ব্যাপারে ছোটন বলেন, ‘আগের পরিসংখ্যান মনে করে লাভ নেই। দুই বছরে অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়েছে। এখন নতুন ম্যাচ, সব কিছ্ইু নতুন।’

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে ১-০ গোলের ব্যবধানের হার দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করে মারিয়ারা। দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী জাপানের কাছে ৯-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়। অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা অবশ্য ড্রয়ে। জাপানের বিপক্ষে গোলশূন্য ব্যবধানে শুরু; দ্বিতীয় ম্যাচে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে জয় ৬-১ ব্যবধানে। চার দলের টুর্নামেন্টে তলানিতে বাংলাদেশ। পয়েন্টশূন্য। জাপান এবং অস্ট্রেলিয়ার সমান ৪ পয়েন্ট করে। থাইল্যান্ডের পয়েন্ট ৩। তাই বাংলাদেশের জন্য ম্যাচটি নিয়মরক্ষার হলেও অস্ট্রেলিয়ার জন্য গ্রুপসেরা ও রানার্সআপ হওয়ার লড়াই। দুই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট চার। জাপানেরও চার। গোল ব্যবধানে জাপান এগিয়ে। জাপান আজ স্বাগতিক থাইল্যান্ডকে ও অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশকে হারালে দুই দলেরই পয়েন্ট সমান সাত হবে। সে ক্ষেত্রে গোল ব্যবধানে গ্রুপসেরা নির্ধারণ হবে। অস্ট্রেলিয়া স্বাভাবিকভাবেই চাইবে বাংলাদেশকে বেশি গোল দিয়ে গ্রুপ সেরা হতে। আক্রমণাতœক অস্ট্রেলিয়াকে রুখতে প্রস্তুত বাংলাদেশ, ‘আমাদের গ্রুপে চার দলের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার ফুটবলাররা ফিটনেসে অন্য সবার চেয়ে এগিয়ে।’ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে অন্তত একটি পয়েন্ট সম্ভব কিনাÑ এই প্রসঙ্গে ছোটন বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া শক্তিশালী দল। পয়েন্ট পাওয়া অবশ্যই কঠিন। আমরা শেষটা ভালোভাবে করতে চাই।’ জাপানের ম্যাচের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘জাপান ম্যাচ নিয়ে অনেক পরিকল্পনা ছিল। মাঠে সেগুলো খেলোয়াড়রা বাস্তবায়ন করতে পারেনি। এ জন্য ফলাফল এমন হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের আগে খেলোয়াড়দের যার যার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে বিশেষভাবে। জাপানের বিরুদ্ধে ৯-০ গোলে হারের পর স্বাভাবিকভাবেই খেলোয়াড়রা খানিকটা মানসিকভাবে দুর্বল। খেলোয়াড়দের মানসিকভাবে উদ্দীপ্ত করার চেষ্টা করছেন কোচিং স্টাফরা। গত দুই ম্যাচে একই একাদশ খেললেও তৃতীয় ম্যাচে পরিবর্তন আসবে স্পষ্টই জানালেন কোচ, ‘একাদশে পরির্বতন হবে। কোন পজিশনে কয় জন পরিবর্তন হবে সেটা ম্যাচের দিন ঠিক হবে। ’

এই গ্রুপের একমাত্র নারী কোচ অস্ট্রেলিয়ান রায়দোয়ের। বাংলাদেশ ম্যাচ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ দুই ম্যাচ হারলেও তাদের ভালো খেলার সামর্থ্য আছে। আমরা ভালোমতো জিতে সেমিফাইনালে যেতে চাই।’ দুই বছর আগে একই ভেন্যুতে একই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। দুই দলের কোচও এক। দেখার বিষয় দুই বছর পর এই ম্যাচের ফলাফল গতবারের মতো এক হয় না ভিন্ন !

অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ সামনে রেখে গতকাল টিম হোটেলের সামনে হালকা স্ট্রেচিং ও বলের ওপর কাজ করে নিজেদের শেষবারের মতো ঝালিয়ে নিয়েছে মারিয়া মান্ডারা। অস্ট্রেলিয়াও একই হোটেলে। তাই হোটেলের নিচে টিম ট্যাকটিকস নিয়ে কাজ করা সম্ভব হয়নি তাদেরও।

advertisement
Evall
advertisement