advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সেই নারীকে খুঁজে পেলেন রোনালদো

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২৩:০২
advertisement

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর শৈশবে অভাব-অনটনে কেটেছে। পর্তুগালের মাদেইরাতে বড় হয়েছেন তিনি। তখন লিসবনে খেলতেন রোনালদো। অনুশীলন শেষে ম্যাকডোনাল্ডসের সামনে হ্যামবার্গারের আবদার করতেন রোনালদো ও তার সতীর্থরা। দোকানের ম্যানেজার এডনা নামের নারী কর্মীকে দিয়ে বার্গার পাঠিয়ে দিতেন। রোনালদোরা বার্গার পেয়ে খুশি মনে চলে যেতেন। সপ্তাহে ২-৩ দিন এমন ঘটেছে।

রোনালদো সম্প্রতি সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমার বয়স তখন ১১ বা ১২ হবে। আমরা তরুণ খেলোয়াড়রা একসঙ্গে থাকতাম। তিন মাসে একবার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারতাম। প্রতি রাতে ১০টা বা ১১টায় ক্ষুধা পেত। আমরা ম্যাকডোনাল্ডসে গিয়ে খোঁজ নিতাম। দিন শেষে বার্গার বেঁচে থাকলে যদি ফ্রিতে পাওয়া যায়। এডনা ও আরও দুজন মেয়ে খুব ভালো ছিলেন। তারা আমাদের বার্গার এনে দিতেন। ওই মেয়েদের অনেক খুঁজেছি আর পাইনি। কেউ যদি ওদের খোঁজ দিতে পারে তো আমি তাদের সঙ্গে রাতের খাবার খেতে চাই।’ রোনালদোর সাক্ষাৎকারটি ছাপা হওয়ার পর পাউলো লেকা নামে আরেকজনকে খুঁজে পাওয়া গেছে।

লেকা এখন দুই সন্তানের মা। সে জানিয়েছে তার স্বামীও ব্যাপারটি জানে। তারা রোনালদোর নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে চায়। লেকা বলেছেন, ‘আমার স্বামী এটা আগে থেকেই জানত। ওই রাতগুলোয় আমার স্বামী নিতে আসত। সেও রোনালদোদের দেখেছে। অনেক দিন আগের সে দিনগুলোয় ফিরে যাওয়া আসলে মজারই। এটা প্রমাণ করে রোনালদো কতটা নম্র। আর লোকে অন্তত ভাববে না যে আমি এতদিন বানিয়ে বানিয়ে রোনালদোর গল্প বলেছি। যদি সে আমাদের রাতের খাবার খেতে নিমন্ত্রণ দেয় তো সমস্যা নেই। আর ধন্যবাদ তো অবশ্যই দেব।’

advertisement