advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গ্যাস রপ্তানির পিএসসি সরকারের দ্বিচারিতা -আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:১০
advertisement

গ্যাসের মজুদ ফুরিয়ে আসছে, পর্যাপ্ত গ্যাস নেইÑ দাবি করে সরকার বিদেশ থেকে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) আমদানি করছে। আবার সেই সরকারই রপ্তানির বিধান রেখে অংশীদারত্ব চুক্তি বা পিএসসি-২০১৯ (প্রোডাকশন শেয়ারিং কন্ট্রাক্ট) অনুমোদন দিয়েছে। এটি সরকারের দ্বিচারিতা। ‘পিএসসি ২০১৯’কে রপ্তানিমুখী আখ্যা দিয়ে এটি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির নেতারা।

গতকাল শনিবার রাজধানীর পুরানা পল্টনের মুক্তি ভবনে গ্যাস রপ্তানিমুখী ‘পিএসসি ২০১৯’ বাতিল কর শীর্ষক সংলাপের আয়োজন করে তেল-গ্যাস জাতীয় কমিটি। সভা থেকে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর পিএসসি ২০১৯ বাতিলের দাবিতে ঢাকাসহ সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করে তেল-গ্যাস কমিটি। এ ছাড়া ৪ অক্টোবর থেকে বিভাগীয় সম্মেলনের ঘোষণা দেওয়া হয়। সিলেট থেকে বিভাগীয় সম্মেলনের কর্মসূচি শুরু হবে বলে আনু মুহাম্মদ জানান।

আলোচনা অনুষ্ঠানে তেল-গ্যাস কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, দেশে এখন হাওয়া ভবন খাওয়া ভবন তৈরি হয়েছে। পথেঘাটে ক্যাসিনোতে টাকা পাওয়া যাচ্ছে। অথচ সরকার বলছে বাপেক্সের জন্য টাকা নেই। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, পেট্রোবাংলা, তিতাসসহ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানে হাজার হাজার কোটি টাকা পড়ে রয়েছে। এ অর্থ দিয়ে খুব অনায়াসে বাপেক্সে সহ জ্বালানি খাত গড়ে তোলা যায়, স্বনির্ভরতা গড়ে ওঠে। সেসব না করে ওই অর্থ সরকার নিজের কাছে নেওয়ার জন্য আইন করছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এমএম আকাশ বলেন, জ্বালানি খাতে সক্ষমতা গড়ে তোলা হচ্ছে না। বাপেক্সের জনবল বাড়ানো হচ্ছে না। অন্যদিকে চলছে দুর্নীতি। এসবের অবসান ঘটাতে হবে।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, দেশের মানুষকে না জানিয়ে রপ্তানির বিধান রেখে গোপনে পিএসসির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এই পিএসসি অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানান তিনি।

সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, নতুন পিএসসি দেশের স্বার্থ রক্ষা করবে না। এ পিএসসি বাতিল করে বাপেক্সকে শক্তিশালী করার দাবি জানান তিনি।

আরও বক্তব্য দেন গবেষক মাহা মির্জা ও কল্লোল মোস্তফা। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা খালেকু লিপন প্রমুখ।

advertisement