advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রোহিঙ্গা ঠেকাতে ইসির সার্ভারে নতুন পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:১১
advertisement

জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্যভা-ারের (সার্ভার) সুরক্ষায় ‘ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড’ (ওটিপি) পদ্ধতি চালু করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আজ রবিবার থেকেই ওটিপি ছাড়া ইসির কোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারী ভোটার তথ্যভা-ারে ঢুকতে পারবেন না। সাম্প্রতি চট্টগ্রামের খসড়া ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা শনাক্ত হওয়ার পর দেশব্যাপী সুরক্ষামূলক ব্যবস্থা হিসেবে ইসি এ পদ্ধতি প্রয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ইসি সচিবালয় সূত্র জানায়, রবিবার থেকে ডেটা এন্ট্রি অপারেটর, উপজেলা-থানার কোনো কর্মকর্তা সার্ভারে ঢুকতে চাইলে তাকে ফিঙ্গার প্রিন্ট দিতে হবে। সেটি অনুমোদিত হলে তাকে পাসওয়ার্ড দিতে হবে। পাসওয়ার্ড অনুমোদিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা-থানা নির্বাচন কর্মকর্তার ই-মেইল অথবা মোবাইল ফোনে ওটিপি যাবে। সেই ওটিপি তিনি সংশ্লিষ্ট কর্মী বা কর্মকর্তাকে দিলে তবেই কেবল ওই ব্যক্তি সার্ভারে প্রবেশ করতে পারবেন। আগে শুধু পাসওয়ার্ড দিয়ে ডেটা এন্ট্রি অপারেটর বা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সার্ভারে ঢুকতেন।

অভিযোগ আছে, অপারেটরদের অনেকে অন্য অপারেটরের পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে জালিয়াতির কাজ করেছেন। এমনকি কর্মকর্তাদের অনেকে নিজের পাসওয়ার্ড অফিস সহকারী ও ডেটা এন্ট্রি অপারেটরদের দিয়ে রাখতেন। ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা ভোটার শনাক্ত হওয়ার পর এ মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে মাঠকর্মীদের পুরনো পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নতুন পাসওয়ার্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ফিঙ্গার প্রিন্ট ব্যবহারের নিয়ম চালু করা হয়।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুল ইসলাম বলেন, ‘ওটিপি চালু হলে উপজেলা অফিসে কর্মচারীরা চাইলেই আর সার্ভারে ঢুকতে পারবেন না। প্রতিবার ঢোকার সময় থানা নির্বাচন অফিসার জানতে পারবেন কখন ঢোকা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের ভোটার হওয়া ঠেকাতে আমরা জিরো টলারেন্স গ্রহণ করেছি। কাউকেই ছাড় দিচ্ছি না। অপরাধী যে পদেরই হোক, তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

advertisement