advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ক্ষুব্ধ জনতা বন্ধ করল কাজ : জামালপুরে সড়ক সংস্কারে হরিলুট

আতিকুল ইসলাম রুকন জামালপুর
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:১২
নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় জামালপুরের এই সড়কটির সংস্কারকাজ বন্ধ করে দিয়েছে ক্ষুব্ধ জনতা -আমাদের সময়
advertisement

সড়ক সংস্কারে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার, ৮০ ভাগ কাজ বাস্তবায়ন দেখিয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিল উত্তোলন ও সড়কের উন্নয়নের নামে সরকারি অর্থ হরিলুটের অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। অনিয়মের কারণে ক্ষুব্ধ জনতা সদর উপজেলার দিগপাইত-রামকৃষ্ণপুর-চাঁনপুর বাজার সড়কের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

সদর উপজেলার দিগপাইত-রামকৃষ্ণপুর-চাঁনপুর বাজার সড়কের ৮ দশমিক ৬০ কিলোমিটার সংস্কার কাজ চলছিল। সড়কের দুই পাশ প্রশস্তকরণ, কার্পেটিং, মেকাডম, গাইডওয়ালসহ বিভিন্ন কাজ করতে ব্যয় ধরা হয় ৭ কোটি ৫ লাখ টাকা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমডিই-এমএই জয়েন্টভেঞ্চার কাজটি পায়। ২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া কাজটি ২০১৮ সালের ২৭ অক্টোবর শেষ হবার কথা ছিল। কিন্তু ৮০ ভাগ কাজ বাস্তবায়ন দেখিয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রায় সাড়ে ৫ কোটি টাকা বিল উত্তোলন করেন। এছাড়া এলজিইডির অফিসের ফাইলে কাজের অগ্রগতির সঙ্গে মাঠের কাজের কোনো মিল নেই বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও এলজিইডির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের যোগসাজশে সড়ক উন্নয়নের নামে অর্থ লোপাটের ঘটনা ঘটেছে বলেও অভিযোগ এলাকাবাসীর।

সড়কে নিম্নমানের ইট, পাথর ও বিটুমিন ব্যবহার করায় কাজ শেষ হবার আগেই হাত দিয়ে নাড়া দিলেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। পথচারীদের পায়ের ঘষায় খুলে যাচ্ছে পাথর।

এ দিকে নিম্নমানের কাজের প্রতিবাদ করায় স্থানীয়রা প্রভাবশালী ঠিকাদারের লোকজনদের হুমকির শিকার হচ্ছেন বলে জানা গেছে। ঠিকাদারের লোকজন তাদের তুলে নেবার হুমকিও দিয়েছে।

এ ব্যাপারে ঠিকাদার সামছুদ্দিন হায়দার দিলীপের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে রাজি হননি। তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। ফিরে এসে দেখা করতে চেয়েছেন।

এলজিইডির সদর উপজেলা প্রকৌশলী রমজান আলী জানান, নিম্নমানের কাজের অভিযোগে স্থানীয়রা সড়কের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে বলে জেনেছি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

এলজিইডির সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী সায়েদুজ্জামান সাদেক জানান, তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পেলে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সড়ক সংস্কার কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে শুধু ঠিকাদারই নয়, এলজিইডির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জড়িত থাকলে তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন জামালপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ ইঞ্জিনিয়ার মোজাফ্ফর হোসেন।

advertisement