advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রে স ব ক্স

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:১২
advertisement

দর্শকদের উপচেপড়া ভিড়

ত্রিদেশীয় সিরিজে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান। ফাইনালের আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে গতকালের ম্যাচটি ছিল নিছক নিয়ম রক্ষার। এই ম্যাচ নিয়েও উৎসাহের কোনো কমতি ছিল না বন্দরনগরী চট্টগ্রামের মানুষের। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের চারপাশ ছিল লোকে লোকারণ্য। ম্যাচ শুরু হওয়ার আগেই গ্যালারির সিংহভাগ দর্শকে ভরে যায়। শনিবার ছুটির দিন দলকে সমর্থন দিতে মাঠে দর্শকের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। উল্লেখ্য, এই সিরিজ দিয়েই প্রায় পাঁচ বছর পর চট্টগ্রামের স্টেডিয়ামে ফিরেছে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট।

সহজ ক্যাচ ফেললেন মাহমুদউল্লাহ

দ্বিতীয় ওভারেই উইকেট পেয়ে যেতে পারত বাংলাদেশ। উইকেটের খাতা খুলতে পারতেন দারুণ বোলিং করা শফিউল। নিজের প্রথম তিন বলে কোনো রান দেননি। পরেরটি শর্ট, পুল করতে গিয়ে বল আকাশে তুলে দিয়েছিলেন রহমতউল্লাহ। শর্ট লেগে বলের পেছনেও গিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ, কিন্তু ধরতে পারেননি ক্যাচ। ১ রানে জীবন পেয়ে রহমতউল্লাহ থামলেন ২৯ রানে। মোস্তাফিজের বলে ক্যাচ তুলেই ফিরলেন এই আফগান ওপেনার। সহজ ক্যাচ মিসের পর বল হাতেও প্রথম ওভারে মাহমুদউল্লাহ কিছু করতে পারলেন না। প্রথম দুই বলে তাকে দুই চার মারলেন জাজাই, শেষ বলে মারলেন ছয়। এই ওভার থেকে এলো ১৬ রান।

কাকতালীয়

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আগের ম্যাচে আফগানিস্তানের ওপেনিং জুটি ভেঙেছিল ৯.৩ ওভারে। বাংলাদেশের বিপক্ষেও আফগানিস্তানের ওপেনিং জুটি ভাঙল ৯.৩ ওভারেই। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আফগানিস্তানের ওপেনিং জুটি ৯.৩ ওভারে করেছিল ৮৩ রান। বাংলাদেশের বিপক্ষে আফগানিস্তানের ওপেনিং জুটি ভাঙল ৭৫ রানে। তবে ৭ রানেই ভাঙতে পারত এই জুটি।

ভুল দিয়ে শুরু

আফগানিস্তানের বিপক্ষে সময়টা ভালো যাচ্ছে না টাইগারদের। বারবার এই দলের বিপক্ষে হারতে হচ্ছে সাকিব-মুশফিকদের। গতকাল আফগানিস্তানের বিপক্ষে টসে জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। প্রথমেই নো বল দিয় যাত্রা শুরু করেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার প্রথম ওভার থেকে ছয় রান সংগ্রহ করে আফগানিস্তান।

advertisement