advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

২৪ ঘণ্টা না যেতেই প্রক্টরকে ‘সরাতে চায়’ ছাত্রলীগ!

ইবি প্রতিনিধি
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২১:৪০ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:৫৮
কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান
advertisement

কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর হিসেবে গতকাল শনিবার দুপুর ২টার দিকে দায়িত্ব গ্রহণ করেন অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান। তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর ২৪ ঘণ্টা না যেতেই আজ রোববার দুপুর থেকে ‘প্রক্টর হটাও’ আন্দোলনে নেমেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা।

আজ বেলা ২টার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটকে তালা দিয়ে প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করছে ছাত্রলীগ কর্মীরা। সেখানে তারা প্রক্টর বিরোধী বিভিন্ন ম্লোগান দিচ্ছেন। রাত ৯টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তারা নেতারা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। 

ওই আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত বিদ্রোহী গ্রুপের নেতা মিজানুর রহমান লালন।

আন্দোলনের বিষয়ে জানতে চাইলে মিজানুর রহমান লালন বলেন, ‘একজন বিতর্কিত ব্যক্তিকে প্রশাসন প্রক্টর হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে। আমরা অন্য যেকোনো শিক্ষককে প্রক্টর হিসেবে মেনে নেব।’

তবে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের এই আন্দোলন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। মোস্তফা অসিফ নামের বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের এক ছাত্র বলেন, ‘লালন তো তার নিজ এলাকাতেই বিতর্কিত। যে ক্যাম্পাসে মাদকাসক্তদের নিয়ে রাজনীতি করে, সে কীভাবে সুস্থ রাজনীতি করবে। প্রশাসনের উচিত হবে সে মাদক ব্যাবসায়ী কি না, সে ব্যাপারে অনুসন্ধান করা।’

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মাহবুবর রহমান বলেন, ‘দায়িত্ব নেওয়ার পর আমি মাদকের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় বিদ্রোহী গ্রুপ আমার বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ বলেন, ‘শেখ হাসিনার কর্মী হিসেবে কোনো ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের এমন কর্মকাণ্ড কাম্য নয়। ছাত্রলীগকে এক হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।’

উল্লেখ্য, এর আগে অধ্যাপক মাহবুব জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট, ছাত্র উপদেষ্টা ও দুই মেয়াদে প্রক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি প্রগতিশীল শাপলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য।

advertisement