advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ক্লাবে অভিযানে ক্ষুব্ধ হুইপ শামশুল

চট্টগ্রাম ব্যুরো
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০১:২৩
শামছুল হক চৌধুরী-ফাইল ছবি
advertisement

অবৈধ ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে চলমান অভিযানের অংশ হিসেবে চট্টগ্রামের বিভিন্ন ক্লাবে অভিযানের তীব্র বিরোধিতা করে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনের এমপি শামসুল হক চৌধুরী। গতকাল রবিবার চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে বিভাগীয় উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে এক সমন্বয়সভা শেষে সাংবাদিকদের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

নগরীর হালিশহরে আবাহনী ক্লাব পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হুইপ শামসুল হক চৌধুরী। ক্লাবটির সভাপতি হিসেবে আছেন সরকারদলীয় আরেক এমপি এম এ লতিফ। গত শনিবার রাতে ওই ক্লাবেও অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব। সেখানেও জুয়ার আসর বসানোর আলামত পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে শামসুল হক চৌধুরী বলেন, ‘অভিযানে ক্যাসিনো বের করতে পারলে তাদের বাহবা দেওয়া যেত। আপনারা সাংবাদিকেরা প্রেসক্লাবে বসে তাস খেলেন; এটা কি জুয়া? জুয়া হলে আপনারা তো প্রেসক্লাবেও বসতে পারবেন না। প্রশাসনকে বলব, ঘুষের ব্যবসা যারা করেন তাদের ধরেন। ঘুষ লেনদেন যারা করে তাদের ধরেন।’

তাস খেলার পক্ষে যুক্তি দিয়ে হুইপ বলেন, ‘ক্লাবে তাস খেলা বন্ধ করলে ছেলেরা রাস্তায় ছিনতাই করবে। এটা বন্ধ করে লাভ হবে না। এখানে কোনো ক্যাসিনো নেই। ক্যাসিনো ধরেন, যেসব ক্লাবে তাস খেলা হয় সেগুলো ধরবেন না। প্রধানমন্ত্রী ক্যাসিনো এবং মদ ব্যবসায়ীদের ধরতে বলেছেন।’

চট্টগ্রাম নগরীতে শতদল, ফ্রেন্ডস, আবাহনী, মোহামেডান, মুক্তিযোদ্ধাসহ ১২টি ক্লাব আছে জানিয়ে হুইপ শামসুল বলেন, ‘এই ক্লাবগুলো প্রিমিয়ার লিগে খেলে। ওদের তো ধ্বংস করা যাবে না। তাদের খেলাধুলা বন্ধ করা যাবে না। প্রশাসন কি খেলোয়াড়দের পাঁচ টাকা বেতন দেয়? ওরা কীভাবে খেলে, টাকা কোথা থেকে আসে? এই ক্লাবগুলো তো পরিচালনা করতে হবে।’

advertisement