advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পদত্যাগ চেয়ে ভিসিকে কালো পতাকা প্রদর্শন

জাবি প্রতিনিধি
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:৩৬
advertisement

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক সম্মান প্রথম বর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। চলবে ১ অক্টোবর পর্যন্ত। গতকাল রবিবার সকাল ৯টায় গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের (‘এ’ ইউনিট) পরীক্ষা সকাল ৯টায় শুরু হয়ে ছয় শিফটে শেষ হয়। এদিকে পরীক্ষা চলাকালীন দুপুর ১টার দিকে ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগ দাবি করে সব ভবনে ‘অবাঞ্ছিত’ ঘোষণা ও কালো পতাকা প্রদর্শন করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা।

আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক আশিকুর রহমান বলেন, আমাদের দাবি ছিল দুর্নীতির বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা। কিন্তু ভিসি আমাদের দাবি মানেননি। পরে যেসব ছাত্র নেতা প্রকল্পের টাকা পেয়েছে, তারা স্বীকার করার পরও ভিসি অস্বীকার করেছেন। ছাত্রলীগ নেতাদের অডিও ফাঁসের মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয় ভিসিসহ তার স্বামী ও ছেলে কমিশন কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত। তাই আমরা এ দুর্নীতিবাজ ভিসিকে ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সব ভবনে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছি এবং ১ অক্টোবরের মধ্যে পদত্যাগের আলটিমেটাম দিয়েছি। এ সময়ের মধ্যে পদত্যাগ না করলে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে।

কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সোহেল রানা, অধ্যাপক জহির রায়হান, অধ্যাপক কামরুল আহসান, অধ্যাপক আনোয়ারুল্লাহ ভুঁইয়া, অধ্যাপক আবদুল জব্বার হাওলাদার,

অধ্যাপক খবির উদ্দিন, অধ্যাপক শফি মুহাম্মদ তারেক, অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু, অধ্যাপক শামীমা সুলতানা, অধ্যাপক নাজমুল হাসান তালুকদার, অধ্যাপক তারেক রেজা প্রমুখ।

আন্দোলনকারীদের ‘অবাঞ্ছিত’ ঘোষণা কর্মসূচি প্রত্যাখ্যান করে ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম পরীক্ষার হল পরিদর্শন করেছেন। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায়িক শিক্ষা অনুষদ ভবনে চলা বিকালের শিফটের পরীক্ষা পরিদর্শন করেন তিনি। এদিকে আন্দোলনকারীরা কর্মসূচি শেষে জানিয়েছেন, আজ সোমবার দুপুর ১টার দিকে তারা একই কর্মসূচি পালন করবেন।

উল্লেখ্য, ‘এ’ ইউনিটভুক্ত গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদে ছাত্রদের ২৩৫ ও ছাত্রীদের ১৭৫টি সিট রয়েছে।

প্রসঙ্গত ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে ‘এ’ ইউনিটের অবশিষ্ট আবেদনকারী এবং ‘এইচ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

advertisement