advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শিশু-কিশোরের কলকাকলিতে মুখর শিল্পকলা

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০১:৪৫
advertisement

শিশুদের অংশগ্রহণে বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ নাট্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব চলছে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে। ‘চতুর্দশ জাতীয় শিশু-কিশোর নাট্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৯’-এর তৃতীয় দিনে গতকাল একাডেমি প্রাঙ্গণ শিশু-কিশোরদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে।

একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হয় ৫টি নাটক। বিকাল ৫টা থেকে শুরু হয় এই মঞ্চায়ন। শুরুতেই ছিল দ্বিজেন্দ্রনাথ ব্যানার্জীর রচনায় কামরুল্লাহ সরকারের নির্দেশনায় ভোর হলো নাট্যদল রাজশাহীর পরিবেশনায় ‘প্রসন্ন প্রকৃতি’। এ ছাড়া কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্প অবলম্বনে দিলীপ কুমার গৌরের নাট্যরূপ ও নির্দেশনায় নাট্য নিকেতন সিরাজগঞ্জের পরিবেশনায় নাটক ‘ছুটি’, মো. সোহেল রানার রচনা ও নির্দেশনায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি শিশু নাট্যদল রাঙামাটির পরিবেশনায় নাটক ‘তারুণ্যের আহ্বান’, সম্বিত সাহার রচনা ও নির্দেশনায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি নাট্যদল জয়পুরহাটের পরিবেশনায় নাটক ‘পাখির ডানা’ মঞ্চস্থ হয়।

অন্যদিকে স্টুডিও থিয়েটার হলে বিকাল ৫টা থেকে জেলা শিল্পকলা একাডেমি জয়পুরহাট, চুয়াডাঙ্গা, রাজশাহী, নওগাঁ, নাটোর, রাঙামাটি, মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও দিনাজপুরের পরিবেশনায় আবৃত্তি, একক অভিনয় ও ৭ মার্চের ভাষণ এবং দিজেন্দ্রনাথ ব্যানার্জীর রচনায় ও সম্মিলিত নির্দেশনায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি শিশু নাট্যদল নওগাঁ মঞ্চস্থ করে নাটক ‘চিড়িয়াখানা’।

উৎসবে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরেণ্য নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, হাসান ইমাম, কেএস ফিরোজ, নাদিয়া আহমেদ, শারমিন লাকী প্রমুখ। অতিথিরা উৎসবে আগত শিশুদের সনদপত্র প্রদান করেন এবং শিশুদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন।

উৎসবে একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা, জাতীয় চিত্রশালা, জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তন ও একাডেমি প্রাঙ্গণসহ প্রতিদিন ৮টি ভেন্যুতে ৯টি জেলার ৮৫টি পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

advertisement