advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আবাহনী মোহামেডানেও জুয়া চলত চট্টগ্রামে

চট্টগ্রাম ব্যুরো
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ০১:৪৫
advertisement

চট্টগ্রাম নগরীর তিনটি ক্রীড়া ক্লাবে হঠাৎ অভিযান চালিয়েছে র‌্যাব। যেখানে ক্রীড়া সামগ্রী থাকার কথা, সেখানে পাওয়া গেছে জুয়াখেলার সরঞ্জাম। আর এসব ক্লাব পরিচালনায় রয়েছেন সরকারদলীয় সংসদ সদস্য, যুবলীগ এবং আওয়ামী লীগ নেতারা। এদিকে মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্রে জুয়া চালানোর আলামত পাওয়ায় ক্লাবটির বিরুদ্ধে জুয়া আইনে মামলা দায়ের করেছে র‌্যাব।

গত শনিবার সন্ধ্যা থেকে নগরীর আইস ফ্যাক্টরি রোডে ‘বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র’, হালিশহরে আবাহনী লিমিটেড এবং সদরঘাটে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে অভিযান চালায় র‌্যাব। মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্রে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় অভিযানে গেলে ক্লাবটি তালাবদ্ধ পায়। পরে একজন নিরাপত্তাকর্মী এসে তালা খুলে দেন। সেখানে অভিযান চালিয়ে জুয়ার ঘুঁটি ও বোর্ড জব্দ করা হয়। দুটি কিরিচও পাওয়া গেছে সেখানে। ওই ক্লাব থেকে সরিয়ে নেওয়া কয়েকটি জুয়ার বোর্ড পরে নগরীর সদরঘাটে লায়ন সিনেমা হলের পেছন থেকে জব্দ করা হয়। মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্র পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সহসাধারণ সম্পাদক মো. হারুন আর রসিদ। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আছেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহসাধারণ সম্পাদক সরওয়ার কামাল দুলু। তবে মহানগর যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে নগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান ক্লাবটি পরিচালনা করছেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের চট্টগ্রাম জেলা ইউনিট কমান্ডার মোহাম্মদ সাহাবউদ্দিন বলেন, ‘তিন বছর আগে কেন্দ্র থেকে ক্লাব পরিচালনার দায়িত্ব নেওয়া হয়। মশিউর রহমানই মূলত এটি পরিচালনা করেন।’ ক্লাব পরিচালনা কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম বলেন, ‘চার বছর আগে খসরু নামে একজনকে ক্লাবের ইজারা দেওয়া হয়। ছয় মাস আগে তার ইজারা শেষ হয়েছে। দৈনিক ১০ হাজার টাকা ভাড়ায় ক্লাবটি ইজারা দেওয়া হয়েছিল।’

র‌্যাব ৭-এর সহকারী পরিচালক সিনিয়র এএসপি মিমতানুর রহমান জানান, আবাহনী ক্লাব এবং মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবেও জুয়ার আসর বসানোর আলামত পাওয়া গেছে।

advertisement