advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আমিরাতে জনতা ব্যাংকের ১৬১ ঋণ খেলাপির বিরুদ্ধে ব্যবস্থার নির্দেশ

মুহাম্মদ মোরশেদ আলম,ইউএই
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২০:০৮ | আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২০:০৮
প্রবাসীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় কথা বলছেন বাংলাদেশের অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মুহাম্মদ আসাদুল ইসলাম। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

জনতা ব্যাংকের সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার ১৬১ জন ঋণ খেলাপির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া নির্দেশ দিয়েছেন দেশটিতে সফররত বাংলাদেশের অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মুহাম্মদ আসাদুল ইসলাম। গতকাল বুধবার রাতে জনতা ব্যাংক আবুধাবি শাখা কার্যালয়ে প্রবাসীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ নির্দেশ দেন তিনি।

এ সময় সচিব বলেন, ‘ঋণ পরিশোধ না করে কেউ পালিয়ে থাকতে পারবে না, দেশে গেলে সেখানেও তাদের আইনের মুখোমুখি হতে হবে।’ তাই ব্যাংককে এসে দ্রুত ঋণ পরিশোধ করতে খেলাপিদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

আরব আমিরাতে সরকারি সফররত সচিব জানান, বিদেশ থেকে রেমিটেন্স প্রদানকারীদের জন্য চলতি বছরের জুলাই থেকে সরকার যে প্রণোদনা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ইতিমধ্যে তার প্রজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে এবং কিছুদিনের মধ্যে প্রবাসীরা প্রণোদনা পাবেন।

সচিব বলেন, ‘প্রবাসীদের সুবিধার্থে বর্তমানে এটিএম বুথ চালু করা হয়েছে। কিছুদিনের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য জীবন বীমাসহ আরও কিছু প্রবাস বান্ধব সেবা চালু করা হবে।’

মুহাম্মদ আসাদুল ইসলাম আরও বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশের জিডিপি সিঙ্গাপুর ও হংকংকে ছাড়িয়ে গেছে এবং এতে বেশি ভূমিকা রেখেছে প্রবাসীরা। তাই প্রবাসীরা আরও বেশি করে যেন বৈধ চ্যানেলে রেমিটেন্স পাঠাতে পারে, সেই জন্য আমিরাত জনতা ব্যাংককে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে।’

এ সময় জনতা ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মুহাম্মদ আমিরুল হাসান বলেন, ‘গত সপ্তাহ থেকে সব গ্রাহকদের জন্য এটিএম বুথের ডেবিট কার্ড বিলি শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে ৬০০ কার্ড দেওয়া হয়েছে।’ বাকিদেরও ব্যাংক থেকে কার্ড সংগ্রহ করার অনুরোধ জানান তিনি।

এ সময় প্রবাসী ও প্রবাসী ব্যবসায়ীরা জনতা ব্যাংকে সেবা বৃদ্ধি, ফ্রি চার্জে দেশে রেমিটেন্স প্রেরণ, সাতটি প্রদেশে জনতা ব্যাংকের শাখা প্রতিষ্ঠা করাসহ সময় উপযোগী নানা দাবির কথা সচিবের সামনে উপস্থাপন করেন। সরকারের সঙ্গে আলাপ করে কিছু কিছু দাবি পূরণের আশ্বাস দেন সচিব।

এ সময় জনতা ব্যাংকের আবুধাবি শাখার ম্যানেজার আবদুল হাই, সিআইপি ফখরুল ইসলাম খান, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব ইউএইর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মোরশেদ আলম, সহসভাপতি রফিক উল্লাহ ও সাংবাদিক জাহাঙ্গীর কবির বাপ্পিসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ইউবিকোর একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বাংলাদেশের অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মুহাম্মদ আসাদুল ইসলাম গত মঙ্গলবার আরব আমিরাতে আসেন।

advertisement