advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সৌদিতে হত্যাকাণ্ডে জড়াচ্ছেন বাংলাদেশিরা, উদ্বিগ্ন কনস্যুলেট কর্মকর্তারা

কামাল পারভেজ অভি,সৌদি আরব প্রতিনিধি
১ অক্টোবর ২০১৯ ২০:২৩ | আপডেট: ৫ অক্টোবর ২০১৯ ২০:৩৩
প্রতীকী ছবি
advertisement

সৌদি আরবে গত এক মাসে নিজ দেশের মানুষের হাতে তিন বাংলাদেশি খুনের ঘটনায় উদ্বিগ্ন জেদ্দা বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কর্মকর্তারা। আজ মঙ্গলবার জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের হেড অব চ্যান্সারি ও প্রথম সচিব মোস্তফা জামিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত এক বার্তায় এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

সৌদি আরবে হত্যার বদলে হত্যা অর্থাৎ নিশ্চিত মৃত্যুদণ্ডের কঠিন শাস্তির কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি সর্বাবস্থায় সহনশীলতা প্রদর্শনের অনুরোধ জানান তিনি।

নিজ দেশের মানুষের হাতে একের পর এক বাংলাদেশি খুনের মতো গুরুতর অপরাধে জড়িয়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি আরবে দেশের সাধারণ এবং নিরাপরাধ মানুষদের ভিসায় কড়াকড়ি আসতে পারে বলেও সতর্ক করেন তিনি।

গত শনিবার মোস্তফা জামিল ফেসবুক পোস্টে লেখেন, ‘বাংলাদেশিদের শেষ করার জন্য পৃথিবীর সর্বত্র বাংলাদেশিরাই যথেষ্ট। গত এক মাসে সৌদি আরবে তিনজন বাংলাদেশি অন্য বাংলাদেশিদের হাতে খুন হয়েছেন। প্রথম ব্যক্তি খুন হলেন আরেক বাংলাদেশির লাঠির আঘাতে। দ্বিতীয়জনকে জবাই করলেন তারই রুমমেট অপর দুই বাংলাদেশি। তা-ও শুধুমাত্র কে আগে বাথরুমে যাবেন-তা নিয়ে ঝগড়ার রেশ ধরে।

পোস্টে তিনি লেখেন, ‘সর্বশেষ আজ (২৮ সেপ্টেম্বর) নাজরানে ছুরিকাঘাতে খুন হলেন জুনায়েদ নামক এক বাংলাদেশি আরেক বাংলাদেশিরই হাতে।’

ফেসবুক পোস্টে তিনি আরও লেখেন, ‘ভাই কেউ কি নিজের দেশে অন্য কোনো বিদেশি জাতির এ ধরনের ক্রমাগত খুনোখুনি সহ্য করবে? আমাদের দেশে যদি অন্য কোনো জাতি একমাসে তিনজন স্ব-জাতিকে হত্যা করত, তাহলে আমাদের প্রতিক্রিয়া কী হতো? এসব হত্যাকাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশিদের ভিসা যদি সৌদি সরকার বন্ধ করে দেয়- তবে কি খুব বেশি দোষের কিছু হবে? আমরা দুই-একজন কীভাবে সম্পূর্ণ একটা দেশ, একটা জাতিকে বিপদে ফেলছি! প্রবাসে আরেকটু বেশি সহনশীল হবার জন্য সবার প্রতি অনুরোধ রইল। এ দেশে মানুষ খুন করার শাস্তি নিশ্চিত মৃত্যুদণ্ড। এ বিষয়টি ভুলে যাবেন না প্লিজ। ’

advertisement