advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফাহাদ হত্যা মামলায় নেই মূল অভিযুক্তরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
৯ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০৮
advertisement

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় যে মামলা হয়েছে, তাতে রহস্যজনক কারণে অন্যতম অভিযুক্তদের নাম নেই বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, শেরেবাংলা হলের

২০১১ নম্বর রুম তথা টর্চার সেলটি কার? তাকে বাঁচাতে বুয়েট প্রশাসন উঠেপড়ে লেগেছে কেন? গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, আবরারকে মারধরের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপসম্পাদক ও পুরকৌশল বিভাগের ছাত্র অমিত সাহাসহ অনেকের নাম এলেও অভিযোগপত্রে তাদের নাম নেই।

বুয়েট কর্তৃপক্ষের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, নির্লজ্জ বুয়েট প্রশাসন এই হত্যাকা-কে সামান্য অনাকাক্সিক্ষত মৃত্যু বলে বিবৃতি দিয়েছে। তারা খুনিদের আড়াল করতে সিসিটিভির ২০ মিনিটের ভিডিও এডিট করে মাত্র দেড় মিনিটের একটি ক্লিপ দিয়েছে আন্দোলনরত ছাত্রদের।

তিনি আরও বলেন, দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাত্রলীগের ক্যাডারদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে। ছাত্রলীগের অতীত ঐতিহ্যকে মøান করে দিয়ে এখন এর ডাকনাম হয়ে পড়েছে চাপাতি লীগ। সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ না করলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখাপড়ার পরিবেশ ফিরবে না, শিক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তা থাকবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ফেসবুক পোস্টে যে ফেনী নদীর পানি ভারতকে দেওয়ার সমালোচনা করেছিলেন ফাহাদ, সেই নদীর নাম ‘আবরার নদ’ রাখার দাবি জানান রিজভী। তিনি বলেন, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার যুদ্ধে এবং দেশের মাটি, পানি রক্ষার যুদ্ধে আবরার ফাহাদ প্রথম শহীদ। ভারতের সঙ্গে সাম্প্রতিক চুক্তির প্রতিবাদে ধাপে ধাপে কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় নেতা খায়রুল কবির খোকন, আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, সেলিমুজ্জামান সেলিম, খন্দকার আবু আশফাক প্রমুখ।

advertisement