advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কালোতালিকায় ২৮ চীনা প্রতিষ্ঠান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৯ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০৯
advertisement

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুরদের ওপর নিপীড়নে জড়িত থাকার অভিযোগে দেশটির ২৮ সংস্থাকে কালোতালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এতে সংস্থাগুলো ওয়াশিংটনের অনুমতি ছাড়া কোনো মার্কিন পণ্য কিনতে পারবে না। এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি চীন। বিবিসি।

জিনজিয়াং প্রদেশের জনসংখ্যার ৪৫ শতাংশ উইঘুর মুসলিম। এই প্রদেশটি তিব্বতের মতো স্বশাসিত একটি অঞ্চল। বিদেশি মিডিয়ার ওপর এখানে প্রবেশের ব্যাপারে কঠোর বিধিনিষেধ রয়েছে। কিন্তু গত বেশ কয়েক ধরে বিভিন্ন সূত্রে খবর আসছে যে, সেখানে বসবাসরত উইঘুরসহ ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা ব্যাপক হারে আটকের শিকার হচ্ছে। চীনে হান চাইনিজরা সংখ্যাগুরু। তাদের তুলনায় মুসলিম উইঘুরদের সংখ্যা নগণ্য।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য দপ্তরের এক নথিতে বলা হয়, এই সংগঠনগুলো মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। সোমবার মার্কিন বাণিজ্য দপ্তর প্রকাশিত নথিতে বলা হয়, এই ২৮টি প্রতিষ্ঠান চীনের নিপীড়নের সঙ্গে জড়িত ছিল। উইঘুর, কাজাখসহ অন্যান্য মুসলিম সংখ্যালঘুদের ওপর নজরদারি ও নিপীড়নে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের এই প্রতিষ্ঠানগুলো সহায়তা করেছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের কালোতালিকার মধ্যে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম নজরদারি সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানও রয়েছে। রয়েছে জিনজিয়াংয়ের জননিরাপত্তা অধিপ্ততর।

তবে এবারই চীনা প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ যুক্তরাষ্ট্রের জন্য এবারই প্রথম নয়, এর আগেও বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের ইতিহাস রয়েছে।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো জানায়, চীন অনেক দিন ধরেই উইঘুরদের ওপর নিপীড়ন চালাচ্ছে এবং আটককেন্দ্রে আটক রাখছে। আর চীনের দাবি এগুলো উন্মুক্ত প্রশিক্ষণকেন্দ্র। উগ্রবাদ মোকাবিলায় এই কেন্দ্র পরিচালিত হয়।

advertisement