advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শাহীন আলম দেবিদ্বার

৯ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০
আপডেট: ৯ অক্টোবর ২০১৯ ০০:১২
advertisement

অবৈধ দখল ও যানজটে স্থবির হয়ে পড়েছে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের দেবিদ্বার অংশের গাড়ির চাকা। সড়ক দখল করে বিভিন্ন যানবাহনের স্ট্যান্ড বানানো, অবৈধ যানবাহনের লাগামহীন চলাচল, রাস্তার ওপর বড় বড় বাস-ট্রাক দাঁড় করিয়ে যাত্রী ও মালপত্র ওঠানামা এবং ফুটপাত দখল করে নেওয়ায় এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এই সড়কে প্রতিদিনই ভোগান্তি পোহাচ্ছে পথচারী, স্কুল-কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও রোগীসহ নানা শ্রেণির মানুষ। মহাসড়কের দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রবেশমুখেও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, ভ্যান ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা দাঁড় করিয়ে নিয়মিত যাত্রী ওঠানো-নামানো হচ্ছে।

এদিকে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের বিভিন্ন অংশের কার্পেটিং উঠে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য গর্তের। অল্প বৃষ্টিতে এসব গর্তে পানি জমে থাকে। এ সড়কের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত অংশ বানিয়াপাড়া থেকে মহিলা কলেজ রোড পর্যন্ত। সড়ক ও জনপথ (সওজ) কর্তৃপক্ষ খানাখন্দ ভরা এ সড়কটি বিটুমিন, পিচ ও পাথর দিয়ে সংস্কারের পরিবর্তে শুধু বালু এবং ইটের সলিং করেছে। এতে জনদুর্ভোগ আরও বেড়েছে। ইটের সলিংয়ের ওপর মাটির স্তূপ পড়ায় বুঝাই যাচ্ছে না এটি পাকা, না কাঁচা সড়ক।

অন্যদিকে সরকারি কলেজ রোডের দুইপাশের ফুটপাত এবং যানবাহন চলাচলের রাস্তা দখলে নিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ ব্যবসায়ী ও হকাররা। এতে সংকুচিত হয়ে পড়েছে সড়ক এবং ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক চলাচল। সড়কের হামেশাই পার্ক করা হচ্ছে সিএনজি ও ভ্যানগাড়ি। ফুটপাত দখলে রেখেছে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। ফুটপাতে দাঁড়িয়েই ক্রেতারা কিনছেন পণ্য। দুই দিক থেকে আসা পথচারীরাই পড়ছেন ভোগান্তিতে। আজগর হোটেল মোড় থেকে উপজেলা গেট পর্যন্ত দুইপাশে দাঁড়িয়ে থাকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা। প্রতিদিন ভারী যানবাহন ছাড়াও কয়েক হাজার সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ইজিবাইক ও রিকশাভ্যান চলাচল করে এই সড়কে। ফলে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত যানজট লেগেই থাকে।

এ ব্যাপারে দেবিদ্বার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাকিব হাসান বলেন, সড়কে দখল করা দোকানপাট ও সিএনজিস্ট্যান্ড পর্যায়ক্রমে উচ্ছেদ করা হবে। আমার কাছে জনস্বার্থ আগে। এক-দুইজনের লাভের জন্য হাজার হাজার মানুষ কষ্ট পাবেÑ এটা কিছুতেই হতে দেওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে খুব দ্রুতই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

advertisement