advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আবরারকে কীভাবে মেরেছে, দেখলে প্রধানমন্ত্রী বিচার করবেন : বাবা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
৯ অক্টোবর ২০১৯ ১৫:৩৭ | আপডেট: ৯ অক্টোবর ২০১৯ ১৭:৩৩
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে কতটা নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেখলে বিচার পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন নিহত আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১২টায় কুষ্টিয়া জিলা স্কুলে আবরারের আত্মার মাগফিরাতের জন্য আয়োজিত দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি এ কথা বলেন।

আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর পিতা-মাতাকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। উনি তো এই জ্বালা জানেন। আমার সন্তানকেও নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। সন্তানকে যেভাবে মারেচে দেখলি পারে, উনি (প্রধানমন্ত্রী) যদি নিজে দেখেন তাহলে উনি নিজেই বিচার করবেন।’

মামলার অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যতটুকু দেখছি, তাতে আমি খুশি। আরও চাই, যাতে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের সর্বোচ্চ সাজা নিশ্চিত হয়।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আবরারের বাবা জানান, বুয়েট প্রশাসন থেকে এখনো তার সঙ্গে কেউ যোগাযোগ করেননি।

বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের  উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহার ব্যাপারে আবরারের বাবা বলেন, ‘অমিত সাহা নামে একজনের কক্ষে আমার ছেলেকে নির্যাতন করা হয়েছে। তার নামটা এজাহারে আসে নাই। গতকাল (মঙ্গলবার) মামলার তদন্ত কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপ হয়েছে, তাকে বলেছি অমিত সাহাকে মামলায় অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। উনি (তদন্ত কর্মকর্তা) বলেছেন, তদন্ত করে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।’

দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক এফতে খাইরুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাইনুল ইসলাম প্রমুখ।  

advertisement