advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সকালে যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

রাঙামাটি প্রতিনিধি
১০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০৭
advertisement

রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলায় ফের দুপক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়েছে। গতকাল বুধবার ভোরে বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের কাঁকড়াছড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গতকাল বুধবার সকালে অং সু অং মারমা (২৫) নামে এক যুবকের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন এলাকাবাসী। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে

বেলা ১১টার দিকে মরদেহ উদ্ধার করে। তবে নিহত যুবকের সাংগঠনিক পরিচয় পাওয়া যায়নি।

উপজেলাটিতে গত ছয় মাসে একটি জোড়াখুন, এক সেনাসদস্য ও এক যুবলীগ নেতাসহ ছয়জনকে গুলি করে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ গতকাল এ ঘটনা ঘটল।

চন্দ্রঘোনা থানার ওসি আশরাফ উদ্দীন জানান, ‘স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া মরদেহের পাশে একটি দেশীয় বন্দুকও পাওয়া গেছে। তবে নিহত ব্যক্তি কোন পক্ষের তা জানা যায়নি’।

এর আগে ১৮ আগস্ট সকালে রাঙামাটি রিজিয়নের রাজস্থলী আর্মি ক্যাম্প হতে চার কিলোমিটার দক্ষিণে দুর্গম পোয়াইতুমুখ নামক এলাকায় সেনাবাহিনীর একটি নিয়মিত টহল দলের ওপর সন্ত্রাসীরা অতর্কিতভাবে গুলিবর্ষণ করে। এতে সেনাসদস্য মো. নাসিম (১৯) ও মাহবুব গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন। আহত দুজনকে তাৎক্ষণিক হেলিকপ্টারযোগে চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন সৈনিক নাসিমের মৃত্যু হয়।

স্থানীয়দের তথ্যমতে, মিয়ানমার সীমান্ত হওয়ায় রাজস্থলী উপজেলাটি স্থানীয় ‘মগপার্টি’ নামে পরিচিত মারমা লিবারেশন পার্টির সশস্ত্র ক্যাডারদের বিচরণ রয়েছে। প্রায়শই এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে প্রতিপক্ষের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে।

গত ১৯ মে মধ্যরাতে রাজস্থলী উপজেলায় যুবলীগ নেতা ক্যহ্লা চিং মারমাকে (৪০) অস্ত্রধারীরা ঘরে ঢুকে গুলি করে হত্যা করে। ক্যহ্লা চিং বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ছিলেন।

এর আগে গত ১ জুলাই কাপ্তাই উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের গবাছড়ি আগাপাড়া এলাকায় ঘরে ঢুকে মা ম্রাসাং খই মারমা (৬০) ও তার মেয়ে মেসাংনু মারমাকে (২৯) গুলি করে হত্যা করে অস্ত্রধারীরা। অবশ্য এ ঘটনায় ‘মারমা লিবারেশন পার্টি’কেই দায়ী করেছেন নিহতদের স্বজনরা।

এ ছাড়া গত ৬ আগস্ট সকালে উপজেলার দুর্গম ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের ডাক্তারপাড়ায় আবদুর রহমান (৩৭) নামে একজনকে গুলি করে অস্ত্রধারীরা। আবদুর রহমান স্থানীয় আঞ্চলিক সংগঠন ‘মারমা লিবারেশন পার্টি’র একজন চিহ্নিত চাঁদাবাজ ছিলেন।

advertisement