advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

তদন্তে সহযোগিতা নয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯ ০৮:৫৮
advertisement

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন তদন্তে কোনো সহযোগিতা করবে না বলে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছে প্রেসিডেন্ট কার্যালয় হোয়াইট হাউস। ডেমোক্র্যাট নেতাদের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে তারা অভিশংসন তদন্তকে ‘ভিত্তিহীন’ ও ‘সাংবিধানিকভাবে অবৈধ’ বলে মন্তব্য করেছে। বিবিসি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলো গত মাসে জানায়, সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার ছেলে হান্টারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে ইউক্রেনকে চাপ দিয়েছিলেন ট্রাম্প। প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট সদস্যরা দাবি করেন, এর মাধ্যমে ট্রাম্প তার শপথ ভঙ্গ করেছেন। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ ডেমোক্র্যাট নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি পরিষদের তিনটি কমিটি খতিয়ে দেখছে।

মঙ্গলবার অভিশংসন নিয়ে তদন্ত করা একটি কমিটির কাছে ইউরোপীয় ইউনিয়নে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষ্য দেওয়া আটকে দেয় হোয়াইট হাউস। এর কয়েক ঘণ্টা পর হোয়াইট হাউসের কাউন্সেল প্যাট সিপোলোন শীর্ষ ডেমোক্র্যাট নেতা ও প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এবং তিন ডেমোক্র্যাট কমিটির চেয়ারম্যানের কাছে আট পৃষ্ঠার চিঠি পাঠান। এতে অভিশংসন তদন্তে সহযোগিতা করা হবে না বলে আনুষ্ঠানিকভাবে জানান প্যাট। তিনি অভিযোগ করেন, এই তদন্তের মাধ্যমে ডেমোক্র্যাট নেতারা ‘মৌলিক নিরপেক্ষতা এবং সাংবিধানিক মনোনয়ন প্রক্রিয়াকে লঙ্ঘন করেছেন’। অভিশংসনের জন্য তদন্তের ক্ষেত্রে ডেমোক্র্যাটরা কংগ্রেসে কোনো ভোটাভুটি করেননি বিধায় এই তদন্ত ‘সাংবিধানিকভাবে অবৈধ’।

আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে বাইডেন অনেকখানি এগিয়ে আছেন বলে বেশ কয়েকটি জনমত জরিপে দেখা গেছে। সম্ভাব্য প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করে ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হওয়ার লক্ষেই ট্রাম্প ২৫ জুলাইয়ের ফোনালাপে ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্টকে বাইডেন ও হান্টারের দুর্নীতি তদন্তে চাপ দিয়েছিলেন বলে ধারণা সমালোচকদের।

ওই ফোনালাপের কয়েকদিন আগেই তিনি ইউক্রেইনে ৪০ কোটি ডলারের সামরিক সহায়তা আটকে দিয়েছিলেন। ডেমোক্র্যাটরা বলছেন, বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্তে চাপ দেওয়ার মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট বিদেশি একটি রাষ্ট্রকে মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের সুযোগ করে দিয়েছেন।

advertisement