advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আবরার হত্যা মামলায় আরও একজন গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক
১০ অক্টোবর ২০১৯ ১৭:১০ | আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯ ১৭:৪২
নিহত বুয়েট শিক্ষার্থী আররার ফাহাদ। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এজাহারনামীয় আরও একজনকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএমপি’র গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগ (ডিবি)

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (মিডিয়া) মো. মাসুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গ্রেপ্তারকৃতের নাম- হোসেন মোহাম্মদ তোহা। সে বুয়েটের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (এমই) বিভাগের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ৩টায় গাজীপুরের মাওনা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এর আগে, আজ বৃহস্পতিবার আরও দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে সকালে আবরার হত্যা মামলার বহুল আলোচিত আসামি অমিত সাহাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ রাজধানীর সবুজবাগ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপ-সম্পাদক ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র।

এরপর, আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে আবরারের রুমমেট মিজানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মিজান বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াটার রিসোর্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৬তম ব্যাচের ৩য় বর্ষের ছাত্র।

ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসের জেরে আবরারকে গত রোববার রাতে ডেকে নিয়ে যান বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর তাকে শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে কয়েক ঘণ্টা ধরে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ওইদিন রাত ৩টার দিকে শেরে বাংলা হলের দোতলায় ওঠার সিঁড়ির করিডোর থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরদিন সোমবার রাতে আবরারের বাবা বরকতুল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করলে ওই রাতেই হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগে ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার হওয়া তিনজন মিলিয়ে আবরার হত্যা মামলায় গ্রেপ্তারের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৭ জনে।

 

 

advertisement