advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আবরার হত্যার ঘটনায় কূটনীতিকদের মন্তব্য অনভিপ্রেত : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
১০ অক্টোবর ২০১৯ ১৯:৫০ | আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯ ২০:০৮
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। পুরোনো ছবি
advertisement

বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার হত্যার ঘটনায় কূটনীতিকদের মন্তব্য অনভিপ্রেত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিবছর অসংখ্য ছাত্র-ছাত্রী গুলিবিদ্ধ হয়ে হতাহত হয়, গত মাসেও এ ঘটনা ঘটেছে। যুক্তরাষ্ট্রে যখন স্কুলে গুলিবর্ষণে ছাত্র-ছাত্রীরা হতাহত হয়, পাকিস্তানে শিয়া মসজিদ পুড়িয়ে দেওয়া হয়, তখন কি তারা সবসময় উদ্বেগ প্রকাশ করেন? বুয়েটে ছাত্র নিহত হওয়ার ঘটনা আমাদের আভ্যন্তরীণ বিষয়। এ বিষয়ে বিদেশি কূটনীতিকদের মন্তব্য অনভিপ্রেত।’

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে চট্টগ্রাম বিভাগ সাংবাদিক ফোরামের (চবিসাফ) দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘কয়েকটি বিদেশি মিশন আবরার হত্যাকাণ্ডের পর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের সকল উন্নয়ন সহযোগী রাষ্ট্রকে তাদের ধারাবাহিক সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েই বলতে চাই, এ বিষয়ে তাদের মন্তব্য অনভিপ্রেত।’

ড. হাছান মাহমুদ তার বক্তব্যে গণমাধ্যমকে রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ এবং সমাজের বিবেক তৈরির অন্যতম কাণ্ডারি হিসেবে উল্লেখ করার পাশাপাশি দুঃখপ্রকাশ করে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক ভারত সফরে সম্পাকি চুক্তির বিষয়ে বিবিসি বাংলা অনলাইনসহ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম অসত্য রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বিদেশ থেকে আমদানিকৃত এবং চট্টগ্রামের ইস্টার্ন রিফাইনারিতে অপরিশোধিত পেট্রোলিয়াম পরিশোধনের সময় উপজাত হিসেবে প্রাপ্ত এলপিজি বা তরল গ্যাস আমাদের ব্যবহারের পর উদ্বৃত্ত অংশ ভারতে রপ্তানি করবো। আর তারা লিখেছিল প্রাকৃতিক গ্যাস রপ্তানির কল্পিত সংবাদ। আবার, ভারত আমাদের নৌবাহিনীকে গ্রান্ট হিসেবে ২০টি রাডার দিচ্ছে, আর কিছু সংবাদমাধ্যম লিখেছিল, ভারত রাডার বসিয়ে চীনের ওপর নজরদারি করবে। এগুলো অসত্য সংবাদ, যা হলুদ সাংবাদিকতার পর্যায়ে পড়ে।’

হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দিচ্ছেন না। সমস্ত অন্যায়ের বিরুদ্ধে তিনি দল-মত নির্বিশেষে ব্যবস্থা নিচ্ছেন, যা অতীতে অন্য কেউ নেয়নি। দাবি তোলার আগেই বুয়েটের ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সন্দেহভাজন সকলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার সাংবাদিকদের এ সংগঠনের সভাপতি দৈনিক করতোয়ার বার্তা সম্পাদক মাহমুদুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ডিবিসি টিভির চেয়ারম্যান ইকবাল সোবহান চৌধুরী, ফোরামের মহাসচিব শাহীন উল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ।

advertisement