advertisement
International Standard University
advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সম্রাটকে নির্দোষ দাবি করে মুক্তি চাইলেন মা

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০১৯ ২৩:৪৭
advertisement

ক্যাসিনোকা-ে গ্রেপ্তার যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের মুক্তি চেয়েছেন তার মা। গতকাল রবিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে সম্রাটের মুক্তি চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তার মা সায়েরা খাতুন চৌধুরী। এ সময় সম্রাটকে নির্দোষ দাবি করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার মুক্তি চান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে সম্রাটের কাকরাইলের কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ, ইয়াবা, পিস্তল পাওয়ার ঘটনা পরিকল্পিত সাজানো নাটক ছিল বলে দাবি করে সম্রাটের পরিবার। এ ছাড়া ক্যাঙ্গারুর চামড়া পাওয়ার কারণে সম্রাটকে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে

কারাদ- দেওয়া বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনের আওতায় পড়ে না বলেও দাবি তার।

লিখিত বক্তব্যে সায়েরা খাতুন বলেন, ‘গত ৬ অক্টোবর রবিবার আমার সন্তানকে গ্রেপ্তার করা হয়। যে স্থান থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় সেই স্থানে কোনো ধরনের অস্ত্র বা মাদক পাওয়া যায়নি। কিন্তু মিডিয়ার মাধ্যমে দেখতে পেলাম তাকে কাকরাইল অফিসে নিয়ে আসা হয় এবং ৪ ঘণ্টা ১৭ মিনিট তার অফিস তল্লাশি করা হয়। তল্লাশি চলাকালীন কোনো গণমাধ্যমকর্মীকে ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘মদ পান সম্রাটের মৃত্যুর কারণ হতে পারে বলে ডাক্তার সতর্ক করেছিলেন। তাই সে জেনেশুনে কখনো মদ পান করবে না। সম্রাট গ্রেপ্তারের ১০ দিন আগে থেকে সে কাকরাইলের অফিসেই ছিল না, অফিস ছিল অরক্ষিত। শরীর খারাপ থাকায় অন্য জায়গায় অবস্থান করে।’

সম্রাটের মা বলেন, ‘ক্যাঙ্গারু বাংলাদেশি বন্যপ্রাণী নয় এবং বাংলাদেশে এ প্রাণীটির বিচরণ দেখা যায় না। যেহেতু ক্যাঙ্গারু বাংলাদেশে শিকার করা হয়নি, এটি বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের মধ্যে পড়ে না।’

ওই ক্যাঙ্গারুর চামড়াটি এক প্রবাসী বাংলাদেশি তাকে উপহার হিসেবে দেন, ফলে এটি আইনবিরোধী কাজ নয়। এজন্য সাজা দেওয়ারও বিধান নেই বলেও দাবি করেন তিনি। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ঢাকা শহরে প্রতিটি ক্লাব পরিচালনা করার জন্য কমিটি রয়েছে। আমার সন্তান সম্রাট কোনো ক্লাবের পরিচালনা কমিটির সদস্য নয় শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে এবং ব্যক্তিগত আক্রোশে তাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে জড়ানো হয়েছে।

লিখিত বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী আপনি মানবতার মা। সম্রাট যেমন আমার সন্তান তেমনি আপনারও সন্তানতুল্য। সম্রাট ওপেন হার্ট সার্জারির রোগী। তার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। মা হিসেবে আপনার কাছে আমার আকুল আবেদন সম্রাটের জীবন রক্ষার্থে তাকে মুক্তি দিন। সম্রাটের বাইপাস সার্জারি করে বাল্ব প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। উন্নত চিকিৎসা দিয়ে তার জীবন ভিক্ষা দিন।’ সম্রাটের মা অসুস্থ থাকায় তার পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সম্রাটের বোন ফারহানা চৌধুরী শিরিন।

চলমান ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে শুরু থেকেই নাম জড়ায় ঢাকা দক্ষিণের যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের। গত ৬ অক্টোবর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে কুঞ্জশ্রীপুর গ্রাম থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব।

advertisement