advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আপনি দ্রুত সরে যান, নির্বাচন দিন

১৪ অক্টোবর ২০১৯ ০০:৫৩
আপডেট: ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ০০:৫৩
advertisement

যিনি দেশ শাসন করছেন, বুয়েটে নিহত আবরার ফাহাদের হত্যাকারীরা তার অনুসারীÑ মন্তব্য করে গণফোরামের সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ‘আবরারকে যারা হত্যা করল, এরা কার আদর্শের অনুসারী? যিনি দেশ শাসন করছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম উল্লেখ না করে তার উদ্দেশে বলেন,

‘এই আপনার (প্রধানমন্ত্রী) আদর্শ? তা-ই যদি হয়ে থাকে, আপনার তো এক মুহূর্ত ক্ষমতায় থাকা উচিত না।’ তিনি আরও বলেন, ‘সবার চাওয়া প্রধানমন্ত্রী যেন দেশ শাসন করা থেকে সরে দাঁড়ান।’ সন্ত্রাসকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়া হচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘আবরার কী অন্যায় করেছিল! এটা সংবিধানের ওপর আঘাত।’
গতকাল বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে আবরার হত্যার প্রতিবাদে নাগরিক সভা ও শোক র‌্যালির আয়োজনে কামাল হোসেন এসব কথা বলেন।
আবরারের হত্যাকারীদের পশু উল্লেখ করে গণফোরামের সভাপতি বলেন, ‘ছেলেদের আপনারা পশু বানাচ্ছেন কেন? এই বাংলার ছেলেরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিল, স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছিল, এরা সাহসী ছিল। এদের বানাচ্ছেন পশু। এই ছেলেদের যদি দেশ গড়ার কর্মী হিসেবে লালন করা হয়, তারা দেশকে অনেক কিছু দিতে পারবে; কিন্তু তা না করে হত্যাকারী বানাচ্ছেন।’ ছেলেদের যারা পশু বানাচ্ছে, তাদের বিচার করা হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
৩০ ডিসেম্বর কোনো নির্বাচন হয়নি জানিয়ে কামাল হোসেন বলেন, ‘আমি সাক্ষ্য দেব তৃতীয়বার আপনাকে কেউ নির্বাচিত করে নাই। আপনি স্বঘোষিত প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। আপনি দ্রুত সরে যান। নির্বাচন ঘোষণা করেন। এগুলো দলীয় কোনো চাওয়া নয়; সংবিধানের দাবি।’
কামাল হোসেন বলেন, ‘দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, যে সরকারি দল আছে, শাসন করছে, এই দলে তো আমরা সবাই ছিলাম। ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশকে স্বাধীন করেছি বঙ্গবন্ধু-তাজউদ্দীনের নেতৃত্বে। সেই দলের নাম নিয়ে যা হচ্ছে তাতে বঙ্গবন্ধু, তাজউদ্দীন, মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করা হচ্ছে। কী আশ্চর্য ব্যাপার! সামান্যতম দায়িত্ববোধ হবে না, যিনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেশকে?’
মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত অধিকারকে বন্দুক আর পুলিশ দিয়ে বঞ্চিত করা যাবে নাÑ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে কামাল হোসেন বলেন, ‘সময় থাকতে মাথা ঠাণ্ঠা করে দেশকে আপনার কুশাসন থেকে মুক্ত করেন; যথেষ্ট হয়েছে, আর কত!’
সভায় জানানো হয়, ১৮ অক্টোবর ঢাকায় উন্মুক্ত কোনো স্থানে আবরার নিহতের ঘটনায় শোকসভা হবে। এ ছাড়া আবরারের কবর জিয়ারত করতেও ঐক্যফ্রন্টের নেতারা যাবেন বলে জানানো হয়। তবে কোনো তারিখ উল্লেখ করা হয়নি।

 

advertisement