advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সৌরভ গাঙ্গুলী ‘প্রেসিডেন্ট’ হলে যে লাভ হবে বাংলাদেশের 

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৪ অক্টোবর ২০১৯ ১৯:৫২ | আপডেট: ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ২৩:১০
ভারতের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী
advertisement

সবকিছু ঠিক থাকলে দ্য বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী। ভারতের সব রাজ্য সংস্থার সব ভোট সৌরভের পক্ষে পড়ায় এক প্রকার নিশ্চিত যে পরবর্তী বোর্ড প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন সৌরভ গাঙ্গুলী। প্রেসিডেন্টের জন্য মনোনীত হয়েই বোর্ডের ভাবমূর্তি নষ্ট হতে দেবেন না বলে হুঙ্কার দিলেন সৌরভ।

আজ সোমবার বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। কিন্তু গতকাল রাতেই সব রাজ্য সংস্থার একচেটিয়া ভোট পড়ে তার পক্ষে। বিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি নারায়ণস্বামী শ্রীনিবাসনের পছন্দের ব্যক্তি সাবেক ক্রিকেটার ব্রিজেশ প্যাটেলের কথা শোনা গেলেও সেই সম্ভাবনা বাতিল হয়ে গেছে।

সৌরভ গাঙ্গুলী প্রেসিডেন্ট হলে বাংলাদেশেরও সুবিধা বলে মনে করছেন বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। তিনি বলেন, ‘বিসিসিআই’র সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ভালো। যারা এখন দায়িত্বে আছে তাদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ভালো আছে, আগেও ছিল। সৌরভ গাঙ্গুলি একজন বাঙালি, সাবেক ক্রিকেটার। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই বাড়তি একটা সুবিধা আমরা পাব। কোনো ইস্যু নিয়ে তার সঙ্গে আলাপ আলোচনা করতে স্বাচ্ছন্দ্য অনুভব করব।’

জালাল ইউনুসের মতে বাংলাদেশের অনেকের সঙ্গে গাঙ্গুলীর আত্মার সম্পর্ক আছে। তিনি বলেন, ‘এখানে আমাদের অনেকের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত সম্পর্ক আছে। বাংলাদেশে অনেকবার খেলে গেছেন। সে খুবই তরুণ। আমাদের এখানের অনেকের সঙ্গে তার আত্মার সম্পর্ক আছে ব্যক্তিগতভাবে। এগুলো অবশ্যই কাজে লাগবে। ভারত থেকে  আমরা যে সিরিজগুলো আগে পাইনি, দ্বিপাক্ষিক কিংবা জুনিয়র লেভেলের ম্যাচ; সেগুলো আমরা তার সঙ্গে খুব ফ্রিলি আলাপ করতে পারব। এই সুযোগটা অবশ্যই আছে।’

সৌরভের প্রেসিডেন্ট হওয়ার খবরে চমকে উঠতে পারেন অনেকেই। কেউ কেউ ভেবেছিলেন তিনি ভারতীয় দলের কোচ হতে পারেন। আপাতত বোর্ডের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পথে তিনি। এছাড়া ইউনিয়ন হোম মিনিস্টার অমিত শাহর ছেলে সেক্রেটারি হতে যাচ্ছেন।

বর্তমানে ৪৭ বছর বয়সী সৌরভ এখন ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট হলে এই পদ ছাড়তে হবে তাকে।

advertisement