advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রংপুরের বদরগঞ্জ মামলার খরচ না দেওয়ায় শিক্ষিকা লাঞ্ছিত

রংপুর প্রতিনিধি
১৮ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০২
advertisement

বদরগঞ্জে মামলার খরচ না দেওয়ায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইবনে মিজান কর্তৃক সহকারী শিক্ষিকা আলফা জাহান লিলি লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার বিকালে উপজেলার মধুপুর ইউনিয়নের বালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষিকা উপজেলা শিক্ষা অফিসসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বিদ্যালয়ের জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে এলাকার এক ব্যক্তির সঙ্গে। এ নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়। মামলার খরচ জোগান দেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকসহ অন্য শিক্ষকরা। বুধবার ছিল মামলার নির্ধারিত তারিখ। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইবনে মিজান আদালত থেকে ফিরেই শিক্ষিকা আলফা জাহান লিলিকে অফিস কক্ষে ডেকে নেন এবং মামলার খরচ না দেওয়ায় অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। একপর্যায়ে মারধর করতে থাকেন। নিজেকে রক্ষায় শিক্ষিকা চিৎকার করে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ডাকতে থাকেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিক শিক্ষিকার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন।

শিক্ষিকা আলফা জাহান লিলি জানান, আদালতের নির্দেশে তারা জামিনে আছেন। তাই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে টাকা দেওয়ার প্রশ্নই আসে না। তিনি আরও জানান, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শুধু এবার নয়, এর আগে সহকারী শিক্ষক মনিরা খাতুনের সঙ্গেও এমন আচরণ করেছেন। তার এমন অশালীন আচরণে আমাদের দায়িত্ব পালন করাই দায় হয়ে পড়েছে।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইবনে মিজান বলেন, মারপিটের বিষয়টি সঠিক নয়। কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ওই শিক্ষিকা মাটিতে পড়ে যান। তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয়ের জমি নিয়ে মামলা চলছে। মামলার খরচ আমাদেরই চালাতে হয়। তাই ওই শিক্ষিকার কাছে মামলার খরচের টাকা চেয়েছিলাম। বিষয়টি আপসে মীমাংসার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শায়লা জেসমিন সাঈদ জানান, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। অতিদ্রুত ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

advertisement