advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

৯ দিন ধরে পানি নেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

কাজল আর্য,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
১৯ অক্টোবর ২০১৯ ২১:৩০ | আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০১৯ ২১:৩০
ছবি : আমাদের সময়
advertisement

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পানির পাম্প বিকল থাকায় নয় দিন ধরে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ আবাসিক ভবনগুলোতে পানি সরবরাহ না থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন রোগী ও আবাসিক ভবনে বসবাসকারি ডাক্তার, নার্সসহ কর্মকর্তা কর্মচারীরা। পানি না থাকায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সর্বত্র দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পানি সরবরাহের পাম্পটি গত ১০ অক্টোবর বিকল হয়ে যায়। এতে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে পুরো স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও আবাসিক ভবনগুলোতে। ফলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, আবাসিক ভবনে বসবাসকারি ডাক্তার, নার্সসহ কর্মকর্তা কর্মচারীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।

টয়লেট ও গোসল খানা ব্যবহার করতে পারছেন না রোগী ও তাদের স্বজনরা। ডায়রিয়া রোগীদের জামা-কাপড় অন্য জায়গা থেকে পরিস্কার করে আনতে হচ্ছে।

এমতাবস্থায় ভর্তি দুস্থ ও অসহায় রোগীরাও চিকিৎসা নিতে অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। ৫০ শয্যার এই হাসপাতাল এখন প্রায় রোগী শূন্য হয়ে পড়েছে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে পানির অভাবে চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন কর্মরত চিকিৎসকরা। হাসপাতালের বাইরের টেউবওয়েল থেকে বালতি করে পানি এনে জরুরি বিভাগ চালাতে হচ্ছে তাদের।

সরেজমিনে দেখা যায়, যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা পানির অভাবে টয়লেট ব্যবহার করতে পারছেন না। তারা বাইরে থেকে বালতিযোগে পানি এনে টয়লেট ব্যবহার করছে। পর্যপ্ত পানি না থাকায় টয়লেটের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে। ঘটনার নয় দিন অতিবাহিত হলেও বিকল পাম্পটি চালু করতে পারেনি জেলা স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর।

চিকিৎসা নিতে আসা একাধীক রোগী বলেন, ‘চারদিন ধরে খুব কষ্ট করে হাসপাতালে আছি। টয়লেটে পানি না থাকায় খুবই অসুবিধা হচ্ছে। যাদের সামর্থ আছে তারা হাসপাতাল থেকে অন্য জায়গায় চিকিৎসা নিতে চলে গেছে।’ 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে কর্মরত একাধিক নার্স জানান, পানি সরবরাহ না থাকায় হাসপাতালের পরিবেশ নষ্ট হয়ে গেছে। হাসপাতাল জুড়ে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে গেছে। হাসপাতালে থাকা অসম্ভব হয়ে পড়েছে।’

উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে কর্মরত স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের জুনিয়র মেকানিক খোরশেদ আলম বলেন, ‘হঠাৎ করে পাম্প বিকল হওয়ায় ও পাইপে আয়রন জমে পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।’

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মহীউদ্দিন আহম্মেদ পানি সরবারহ বন্ধ থাকার বিষয়টি শিকার করে বলেন, ‘জেলা স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারি প্রকৌশলী পাম্প নিয়ে গেছেন। দু-এক দিনের মধ্যে পাম্পটি মেরামত করে পানি সরবরাহ স্বাভাবিক হবে।’

আরও আগে পাম্প মেরামত করা সম্ভব ছিল কি না এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এটি  প্রকৌশলীর কাজ।’

এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. শরীফ হোসেন খান বলেন, ‘শুনেছি ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সের পনি সরবরাহের পাম্পটি নষ্ট হয়েছে। নয় দিন ধরে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে এটি আমার জানা নেই। পাম্প আগেই মেরামত করার কথা ছিল।’

advertisement