advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

লুটপাট করতেই যুবলীগে যেতে চান উপাচার্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:১৮
advertisement

ক্যাসিনোসহ নানা উপায়ে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করতেই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মীজানুর রহমান যুবলীগের দায়িত্ব পেতে চান বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। গতকাল দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনাসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। মোশাররফ বলেন, ‘পত্রিকায় দেখলাম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর মীজানুর রহমান ঘোষণা করেছেনÑ তাকে যদি যুবলীগের দায়িত্ব দেওয়া হয়, তিনি উপাচার্যের পদ ছেড়ে দেবেন। এটা শুনে আমি আকাশ থেকে পড়েছি। সমাজ কোথায় গিয়ে পৌঁছেছে? কী জন্য? যুবলীগের দায়িত্বে গেলে ক্যাসিনো চালানো যায়, যুবলীগের দায়িত্বে গেলেই টেন্ডার, যুবলীগের দায়িত্বে গেলে হাজার হাজার কোটি টাকা লুট করার ব্যবস্থা আছে। চিন্তা করেন, একজন ভাইস চ্যান্সেলরের লক্ষ্য কী হয়ে গেছে!’

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলাম, হলের ভিপি ছিলাম, একটি ছাত্র সংগঠনের (ছাত্রলীগ) নেতা ছিলাম, তার পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লেকচারার হয়েছি, অ্যাসিস্টেন্ট প্রফেসর, অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর, প্রফেসর হয়েছি, বিভাগীয় চেয়ারম্যানÑ সব হয়েছি। একজন ভাইস চ্যান্সেলর একটি দলের অঙ্গ সংগঠনের প্রধান হতে চান, যে সংগঠনটি বর্তমানে দুর্নীতিবাজ-চাঁদাবাজ-টেন্ডারবাজের জন্য বিখ্যাত। এর চাইতে সমাজের পচনের উদাহরণ আর এর চেয়ে বেশি আর হতে পারে না।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘জাহাঙ্গীনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ছাত্রলীগ নেতাদের ঈদের বকশিশ দিয়েছেন ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা। যে ভাইস চ্যান্সেলর ঈদের সালামি দেন ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা, তা হলে তিনি কী করছেন? ওনার কাছে কি টাকার গাছ আছে, না টাকা বানানোর মেশিন আছে? আসলে এই সরকার জনগণের সরকার নয় বলে সব স্তরে আজ পচন লেগেছে।’

মোশাররফ বলেন, ‘জবাবদিহিতার অভাবে এমন অবস্থা হয়েছে যে, শুধু খালেদা জিয়াকে একা কারাগারে রাখেনি, কারাগারে বন্দি করেছে এ দেশের গণতন্ত্রকে। এক আজীবন প্রধানমন্ত্রী থাকার জন্য এটা করেছে।’

#নিজস্ব প্রতিবেদক

advertisement