advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভ্যানচালকের পুত্র সবুজের মেডিক্যালে ভর্তি অনিশ্চিত

প্রদীপ মোহন্ত বগুড়া
২০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০১৯ ০০:২১
advertisement

অদম্য মেধাবী বগুড়ার ধুনট পৌর এলাকার জিঞ্জিরতলা গ্রামের সবুজ হোসেন শতবাধা পেরিয়ে এবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু অর্থাভাবে তার ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

সবুজের বাবা বেলাল হোসেন ভ্যানচালক। মা ফুলেরা বেগম গৃহিণী। সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি তিনি। ছেলের মেডিক্যাল কলেজে ভর্তির টাকা কীভাবে জোগাড় করবেন তা নিয়ে আছেন দুশ্চিন্তায়।

তিন ভাইয়ের মধ্যে সবুজ দ্বিতীয়। বড় ভাই ফারুক হোসেন ধুনট সরকারি ডিগ্রি কলেজে সমাজবিজ্ঞান বিভাগে সম্মান তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। ছোট ভাই সৈকত ইসলাম ধুনট সরকারি এনইউ পাইলট মডেল উচ্চবিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। সবুজ হোসেন ২০১৯ সালে ঢাকা নটর ডেম কলেজ থেকে বিজ্ঞানবিভাগে জিপিএ-৫ পেয়ে এইচএসসি পাস করে।

বেলাল হোসেন জানান, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অক্লান্ত পরিশ্রম করেও ছেলেদের খেলাপড়ার খরচের জোগান ঠিকমতো দিতে পারেননি। ছেলে মেডিক্যালে চান্স পেয়েছে। কিন্তু অতবড় কলেজে লেখাপড়া করানোর সামর্থ্য তার নেই। এলাকার বিত্তবানরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলে তবেই তার ছেলের স্বপ্ন পূরণ হবে। শতকষ্টের পর সবুজের মনের সুপ্ত বাসনা পূরণ হয়েছে। ভবিষ্যতে দেশ ও এলাকার মানুষের পাশে থেকে সেবা করতে চায় সে। এ জন্য চায় বিত্তবানদের সহযোগিতা।

advertisement