advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান কাউন্সিলর রাজীব গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক
২০ অক্টোবর ২০১৯ ০৫:০৪ | আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০১৯ ০৫:০৪
advertisement

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসা থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীবকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। ক্যাসিনোবিরোধী চলমান অভিযানে গতকাল বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ৪ নম্বর রোডের ৪০৪ নম্বর বাড়ি থেকে রাতে মোহাম্মদপুর এলাকার এ কাউন্সিলরকে গ্রেপ্তার করা হয়। রাজীব যুবলীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। গ্রেপ্তারের পর তাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। র‌্যাব জানায়, গ্রেপ্তার এড়াতে রাজীব ১৩ অক্টোবর থেকে ওই বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন।

নবম তলা বাড়ির সপ্তম তলার ওই বাসাটি রাজীবের আমেরিকা প্রবাসী এক বন্ধু মিশু হাসান ভাড়া নেন। তবে অভিযানের সময় তিনি সেখানে ছিলেন না। মিশু হাসান বর্তমানে আমেরিকায় রয়েছেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব। এ সময় ওই বাসা থেকে ৭ বোতল বিদেশি মদ, একটি পাসপোর্ট, একটি বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র, তিন রাউন্ড গুলি ও ৪৩ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

বসুন্ধরায় অভিযান শেষে রাত ১টার দিকে ঘটনাস্থলে সংবাদ সম্মেলন করেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম। তিনি বলেন, সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, চাঁদাবাজি ও দখলদারত্বের সুনির্দিষ্ট অপরাধের অভিযোগে রাজীবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাজীব ওই বাসায় অবস্থান করছেÑ এমন তথ্য পেয়ে রাত ১০টার দিকে অভিযান শুরু করে র‌্যাব।

এক প্রশ্নের উত্তরে সারোয়ার বিন কাশেম বলেন, ক্যাসিনোকা-ে রাজীবের সম্পৃক্ততা আছে কিনা, সেটি এখনই বলা যাবে না।
র‌্যাব জানায়, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ওই বাড়িতে রাজীব অবস্থান করছেনÑ এমন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব ১-এর একটি দল বাড়িটি ঘিরে রাখে। তল্লাশি চালায় র‌্যাব। পরে রাত সোয়া ১টার দিকে রাজীবকে গ্রেপ্তার করে মোহাম্মদপুরের তার বিলাসবহুল বাড়িতে নেওয়া হয়। এর আগেই মোহাম্মদপুরের ওই বাড়িটি ঘিরে ফেলে র‌্যাব ২-এর সদস্যরা। পরে ওই বাড়িতেও তল্লাশি চালানো হয়। এ ছাড়া রাজীবের অফিসেও তল্লাশি চালান র‌্যাব সদস্যরা।

রাত দেড়টার দিকে র‌্যাব ২-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ আমাদের সময়কে বলেন, রাজীবের মোহাম্মদপুরের বাড়ি ঘিরে রাখা হয়েছে। তাকে নিয়ে এলেই তল্লাশি অভিযান শুরু হবে।
এর আগে ১১ অক্টোবর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান ওরফে মিজানকে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। ওই দিনই তার বাসায় অভিযান চালিয়ে ৬ কোটি ৭৭ লাখ টাকার চেক এবং ১ কোটি টাকার স্থায়ী আমানতের (এফডিআর) কাগজ উদ্ধার করেন র‌্যাব কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, গত ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার মতিঝিলের ক্লাবপাড়ায় র‌্যাবের অভিযানের মধ্য দিয়ে অবৈধ ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু করে র‌্যাব। এক মাস ধরে চলা এ অভিযানে এ পর্যন্ত ১০টি ক্লাবে অভিযান চালানো হয়। এসব অভিযানের সূত্র ধরে র‌্যাব-পুলিশ সর্বমোট ৪৭টি অভিযান পরিচালনা করে। এর মধ্যে র‌্যাব ৩০টি এবং পুলিশ ১৭টি অভিযান চালায়। এসব অভিযানে যুবলীগের ৫ নেতা, আওয়ামী লীগের এক নেতা, কৃষক লীগের এক নেতাসহ ২২০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার হওয়া অন্যতম হোতারা হলেন- বহিষ্কৃত যুবলীগর ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন স¤্রাট, যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, যুবলীগ নেতা জিকে শামীম অন্যতম।

advertisement