advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আঘাতের চিহ্ন নেই, গণধর্ষণ মামলায় ‘সম্মতিসূচক যৌনতা’র নিদান

অনলাইন ডেস্ক
২১ অক্টোবর ২০১৯ ০৯:৪৬ | আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০১৯ ০৯:৫৭
ফাইল ছবি
advertisement

গণধর্ষণের শিকার নারীর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন না পাওয়ায় মামলায় সব অভিযোগ খারিজ করে দিয়ে আদালত জানিয়েছেন, ওই নারীর সম্মতিতেই যৌন মিলন ঘটেছিল।

২০১৫ সালের ওই গণধর্ষণ মামলায় এর আগে অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছিলেন ভারতের নিম্ন আদালত। গতকাল শনিবার পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট সেই রায়ই বহাল রেখেছেন। আদালত আদেশে বলেছেন, ‘আমাদের মনে হয়েছে, এই মামলায় সংশ্লিষ্ট নারীকে আদৌ অপহরণ করা হয়নি। তার আইনজীবী আদালতের সামনে যে তত্ত্ব পেশ করেছেন তা গ্রহণযোগ্য নয়। উলটো বিবাদী পক্ষের সওয়াল অনেক বেশি যুক্তিনির্ভর।’

ভারতের হাইকোর্টের বিচারপতি যশবন্ত সিং এবং বিচারপতি ললিত বাত্রার বেঞ্চ জানিয়েছেন, ‘অভিযোগ অনুযায়ী পরীক্ষা করে নারীর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন খুঁজে পাননি চিকিৎসক। এর থেকে মনে হচ্ছে যে, যৌন মিলনে তার আপত্তি ছিল না। তাকে যে ধর্ষণ করা হয়েছিল, তার সপক্ষে কোনো যুক্তিপূর্ণ সাক্ষ্য পাওয়া যায়নি। নারীর বয়ানের বিশ্বাসযোগ্যতা না থাকায় বিবাদী পক্ষকে বেনিফিট অব ডাউট দিতে আমাদের আপত্তি নেই।’

নির্যাতিতার বাবার অভিযোগ, ২০১৫ সালের ৩০ অক্টোবর রাতে এক ঘরোয়া অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে পরের দিন সকাল পর্যন্ত বাড়িতে ফেরেননি তার মেয়ে। অমিত, সূর্য, কান্নু ও বিকাশ নামে চার তরুণের বিরুদ্ধে তাকে  অপহরণ করার পরে গাড়িতে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করা হয়।

মামলার শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে অভিযুক্ত অমিত বলেন, তার নামে মিথ্যা অভিযোগ করে ফাঁসানোর চেষ্টা হয়েছে।

advertisement