advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মিথিলা প্রসঙ্গে এবার মুখ খুললেন সৃজিত

বিনোদন প্রতিবেদক
৭ নভেম্বর ২০১৯ ১৪:১৬ | আপডেট: ৭ নভেম্বর ২০১৯ ১৪:১৬
ভাইরাল হওয়া মিথিলা ও ফাহমির ছবি (বাঁ থেকে), নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি
advertisement

নির্মাতা ইফতেখার আহমেদ ফাহমির সঙ্গে মডেল-অভিনেত্রী মিথিলার বেশ কিছু অন্তরঙ্গ ছবি এখন নেট দুনিয়ায় ভাইরাল। এই নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনাও। সম্প্রতি ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার ক্রাইম ইউনিটে অভিযোগ করেছেন অভিনেত্রী মিথিলা। তার পাশে দাঁড়িয়েছেন শোবিজ অঙ্গনের বেশ কয়েকজন তারকা।

এদিকে, কলকাতার জনপ্রিয় নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে মিথিলার প্রেমের গুঞ্জন এরই মধ্যে খবরের শিরোনাম হয়েছে বহুবার। এবার ফাহমি-মিথিলার প্রসঙ্গ নিয়ে মুখ খুলেছেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় এই নির্মাতা। গতকাল টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সৃজিত বলেন, ‘এটি একটি অপরাধমূলক কাজ এবং ব্যক্তিগত গোপনীয়তার লঙ্ঘন। এই কাজ যে করেছে তাকে আটক করা উচিত। মিথিলা পরিস্থিতি যেভাবে সামাল দিচ্ছেন, তা অনুকরণীয়। আমি মনে করি ফেসবুকে তার দীপ্তিমান/উজ্জল বিবৃতি, আমাকে তার জন্য আরও বেশি গর্বিত করেছে।’

এর আগে, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার ক্রাইম ইউনিটে ই-মেইলের মাধ্যমে মিথিলা অভিযোগ করেন। এমনকি গত মঙ্গলবার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েও তিনি তার বক্তব্য সবার সামনে তুলে ধরেন। তিনি বলেছেনন- ‘কী ঘটেছে তার কোনো ব্যাখ্যা দিতে আসিনি। বরং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমার কিছু ব্যক্তিগত ছবি নিয়ে যা হয়েছে সেই সম্পর্কে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করতে চাই। এসব ছবির কিছু বাস্তব, কিছু মনগড়া। আমার সুনাম ক্ষুণ্ন করতে কিছু অপরাধী প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে এগুলো অনলাইনে ছেড়ে দিয়েছে। পরে অবশ্য অভিনেত্রী মিথিলা তার স্ট্যাটাসটি মুছে ফেলেন।

নির্মাতা ইফতেখার আহমেদ ফাহমির সঙ্গে মিথিলার প্রেম ছিল। তখন (২০১৭-১৮ সাল) তোলা কিছু ছবিই ফাঁস হয়েছে জানিয়ে তিনি উল্লেখ করেন, ‘তার (ফাহমি) ফেসবুক প্রোফাইল হ্যাক হয়েছিল। তখনই অপরাধীরা খারাপ উদ্দেশ্যে ব্যবহারের জন্য এগুলো খুঁজে নিয়েছে। এখানে ‘ডেটিং’ শব্দটির ওপর জোর দিতে চাই, যার অর্থ আমরা একটি সম্পর্কে ছিলাম। সহজভাবে বললে দুটি মানুষ একে অপরের সঙ্গে জড়ালে ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত কাটায়, ছবি তোলে। প্রযুক্তির যুগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তারা এগুলো ভাগ করে নেয়। তবে নিজের গোপনীয়তা রক্ষা করতে না পারার দায় আমারই।’

ব্যক্তিগত ছবি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় মোটেও লজ্জিত নন মিথিলা। স্ট্যাটাসে তা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি, ‘আমার লজ্জা লাগছে এই ভেবে- দেশের কিছু কুৎসিত লোক আমার ব্যক্তিগত মুহূর্তগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইচ্ছামতো পোস্ট, শেয়ার ও ব্যবহারের সুযোগকে কাজে লাগিয়েছে। আমার খ্যাতি ও ভাবমূর্তিকে অসম্মান করে তারা সাবস্ক্রিপশন বাড়াচ্ছে ও নানা খবর ছড়িয়ে দিচ্ছে। আমার লজ্জা হয় সেসব মিডিয়ার জন্য, বিশেষ করে কয়েকটি নিউজপোর্টাল আমার অনুমতি ছাড়াই আমাকে উদ্ধৃত করে এ খবর প্রকাশ করেছে। অথচ আমি এ নিয়ে কখনই কথা বলিনি বা কোনো বক্তব্য দেইনি। ঘরে-বাইরে, ভার্চুয়াল জগৎসহ সর্বত্র যে কোনো জায়গায় নারীদের যৌন হেনস্তা করা হলে একইভাবে লজ্জিত ও ক্ষিপ্ত হই।’

নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে মিথিলা আরও লিখেছেন, ‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আমার সম্মান ও মর্যাদা শুধু আমার আকার আর পোশাকের কিংবা ব্যক্তিগত ছবির মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। জীবনে কঠোর পরিশ্রম, সৃজনশীলতা ও শিক্ষার মাধ্যমে সব অর্জন করেছি। আমার অতীতের ব্যক্তিগত মুহূর্তগুলো চুরি করে কিছু অপরাধীর কুকর্মের কারণে এসব ভেঙে যাওয়ার মতো ঠুনকো নয়।’

সাইবার অপরাধ বিভাগে অভিযোগ জানানো হয়েছে উল্লেখ করে মিথিলা হুঁশিয়ার করেন, ‘যারা আমার মান-সম্মান নিয়ে খেলেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তায় সেই দুষ্কৃতকারীদের চিহ্নিত করে ছাড়ব। শপথ করছি, নিজের জন্য এবং হ্যাকার ও সাইবার অপরাধীদের শিকার হওয়া সবার জন্য লড়ব।’

উল্লেখ্য, তাহসানের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর গায়ক ও অভিনেতা জন কবিরের সঙ্গে মিথিলার প্রেমের খবর সবার সামনে আসে। সে গুঞ্জনের রেশ কাটতে না কাটতেই সামনে আসে সৃজিত ও মিথিলার প্রেমের খবর। দুজনকে প্রায়ই দেখা যায় নানা জায়গায়। জানা গেছে, সৃজিতের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন তিনি। শিগগিরই তারা বিয়ে করছেন।

advertisement