advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নিহত সাতজনের মধ্যে ছিলেন দুই দম্পতি

পঞ্চগড় প্রতিনিধি
৮ নভেম্বর ২০১৯ ১৮:৪৬ | আপডেট: ৮ নভেম্বর ২০১৯ ২১:১১
ছবি : আমাদের সময়
advertisement

পঞ্চগড়ে বাস ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে দুই দম্পতিসহ সাতজন নিহত হয়েছেন। আজ শুক্রবার দুপুরে পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কের মাগুরমারী চৌরাস্তা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনাস্থলেই অটোরিকশাচালকসহ পাঁচজন মারা যান। গুরুতর আহত অবস্থায় দুজনকে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। নিহত সবাই অটোরিকাশার যাত্রী।

নিহতরা হলেন, পঞ্চগড় সদর উপজেলার চেকরমারি গ্রামের অটোরিকশাচালক রফিক (২৮), বদিনাজোত গ্রামের আকবর আলী (৭২) ও তার স্ত্রী নুরিমা (৬৫), রায়পাড়া গ্রামের মাকুদ হোসেন (৪৩), তেঁতুলিয়া উপজেলার মাঝিপাড়া গ্রামের লাবু ইসলাম (২৫) ও তার নববধূ মুক্তি (১৯) ও সাহেবজোত গ্রামের নারগিস বানু (৪২)।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী হাইওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। ঘটনার পরপরই জেলা প্রশাসক (ডিসি) সাবিনা ইয়াসমিন, পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ ইউসুফ আলীসহ ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে যান। পরে সেখানে তারা ক্ষুধ্ব জনতার তোপের মুখে পড়েন। ঘটনার আড়াই ঘণ্টা পর ওই সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পঞ্চগড় থেকে তেঁতুলিয়াগামী একটি বিনিবাস ছাগল বাঁচাতে গিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা অটোরিকশাকে চাপা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, তেঁতুলিয়ার মাঝিপাড়া গ্রামের লাবু ইসলাম (২৫) সম্প্রতি বিয়ে করেছেন। এ দুর্ঘটনায় নববধূ মুক্তিও মারা যান। ওই দম্পত্তির মাত্র ৪৫ দিন আগে বিয়ে হয়েছিল।

পঞ্চগড় ফয়ার সার্ভিস স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিরঞ্জন সরকার জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি পাঁচজনের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। তাদের মধ্যে দুজন নারী ও তিনজন পুরুষ ছিলেন।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) সিরাজউদৌলা পলিন জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত আকবর আলী ও মুক্তি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

সড়ক দুর্ঘটনায় সাতজন নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চত করে এসপি মোহাম্মদ ইউসুফ আলী জানান, মিনিবাসটিকে পুলিশ জব্দ করেছে। তবে চালক পালিয়ে গেছেন। দুর্ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 

advertisement