advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পায়রা ও মোংলা বন্দরে বিপদ সংকেত

নিজস্ব প্রতিবেদক
৮ নভেম্বর ২০১৯ ২০:১২ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ০১:১৯
ছবি : ইউএনবি
advertisement

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আগামীকাল শনিবার মধ্যরাতের দিকে বাংলাদেশের খুলনা-বরিশাল অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র শক্তিশালী আঘাতের আশঙ্কায়  পটুয়াখালীর পায়রা, খুলনার মোংলা সমুদ্র বন্দরকে ৭ নম্বর, চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত এবং কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র আঘাতের প্রভাব দেশের উপকূলবর্তী ১৩ জেলায় পড়তে পারে বলে জানিয়েছেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান।

আজ শুক্রবার সচিবালয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায়  সব ধরনেব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এর আঘাতের আশঙ্কায় ২২ মন্ত্রণালয় ও উপকূলীয় এলাকার প্রশাসনের কর্মচারী-কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়টির অবস্থান সম্পর্কে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ সকালে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৭৬৯ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার থেকে ৭১০ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড়ের বাতাসের গতিবেগ ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন জাহাজ চলাচল বন্ধ রয়েছে। সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকা পড়েছেন কয়েকশ’ পর্যটক। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সাগর কিছুটা উত্তাল থাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে ঢাকা, কক্সবাজার, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। এর প্রভাবে খুলনায় আজ সকাল থেকেই রোদের দেখা পাওয়া যায়নি। সেখানে আকাশে কালো মেঘ জমে আছে। তবে কোনো বাতাস নেই, নেই বৃষ্টিও।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে আজই বাতাসসহ বড় ধরনের বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তবে সন্ধ্যা থেকে থেমে থেমে বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

কবে নাগাদ ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বাংলাদেশ সীমান্ত অতিক্রম করতে পারে-এমন প্রশ্নে আবহাওয়াবিদরা বলেছেন, ‘এটি আগামীকাল শনিবার রাত এবং পরের দিন রোববার সকাল নাগাদ বোঝা যাবে। তবে এখন যে গতিবিধি রয়েছে তাতে বরিশাল, খুলনা দিয়ে অতিক্রম করার সম্ভাবনা রয়েছে।’

advertisement