advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

থানায় চোখ বেঁধে হাতকড়া পরিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ

নড়াইল প্রতিনিধি
৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:১২
advertisement

থানায় নিয়ে হেফাজতে এক যুবককে চোখ বেঁধে ও দুই হাত পেছনে নিয়ে হাতকড়া পরিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে নড়াইলের লোহাগড়া থানার উপপরির্শক (এসআই) নুরুস সালাম সিদ্দিকের বিরুদ্ধে। নির্যাতনের শিকার শিহাব মল্লিক (২৮) নামে ওই যুবক লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি লোহাগড়া পৌর এলাকার গোপীনাথপুর গ্রামের এনামুল মল্লিকের ছেলে।

পরিবারের অভিযোগ, গত ৩ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টার দিকে শিহাব মল্লিককে গ্রেপ্তার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়। ওইদিন রাত সাড়ে ১১টা থেকে পরের দিন (৪ নভেম্বর) সকাল পর্যন্ত তার ওপর কয়েক দফায় নির্যাতন চালানো হয়। এর পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয় শিহাবকে।

নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে এসআই সিদ্দিক গতকাল শুক্রবার বলেন, যেদিন শিহাবকে গ্রেপ্তার করা হয়, তার পরের দিনই তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

শিহাব মল্লিক জানান, গত ২ নভেম্বর সকালে আর্থিক ও পারিবারিক বিরোধে ফুফাতো ভাই মনিরুল ও খাইরুল মল্লিক যৌথভাবে তার বাবা এনামুল মল্লিকের ওপর চড়াও হন। বিষয়টি নিয়ে তাদের বড় ভাই বদরুল মল্লিকের সঙ্গে শিহাব মল্লিকের বাগ্বিত-া হয়। একপর্যায়ে শিহাব বদরুল মল্লিককে মারধর করেন। এ ঘটনায় বদরুল মল্লিকের ছোট ভাই মনিরুল মল্লিক বাদী হয়ে শিহাব ও তার মা বিউটি বেগমকে আসামি করে

গত শনিবার (২ নভেম্বর) লোহাগড়া থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নুরুস সালাম সিদ্দিক পরদিন শিহাব মল্লিককে গ্রেপ্তার করে থানা হেফাজতে রাখেন। খবর পেয়ে তার পরিবারের লোকজন ছুটে যান থানায়। পরিবারের লোকজনকে দেখা করা ও রাতের খাবার দিতে দেননি ওই তদন্তকারী কর্মকর্তা।

শিহাব মল্লিকের অভিযোগ, গত রবিবার রাত সাড়ে এগারোটা ও সোমবার সকালে এসআই সিদ্দিক তাকে দুই হাত পেছনে নিয়ে হাতকড়া পরিয়ে চোখ বেঁধে নির্দয়ভাবে নির্যাতন করেন। নির্যাতনের কারণে তিনি কয়েকবার জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। শিহাবকে কিছুটা সুস্থ করে সোমবার সকালে আদালতে হাজির করা হলে জামিন নামঞ্জুর করে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠায়। গত বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) জামিনে মুক্ত হলে ওইদিন সন্ধ্যায় শিহাবকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোকাররম হোসেন জানান, পুলিশ হেফাজতে শিহাব মল্লিকে নির্যাতনের অভিযোগের বিষয়টি সঠিক নয়।

advertisement