advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

১০০ শয্যার হাসপাতাল হবে নড়িয়ায়

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:১২
advertisement

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেছেন, নড়িয়ার মানুষের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে আগামী এক বছরের মধ্যে নতুন একটি ১০০ শয্যার হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে। ইতোমধ্যে নদীগর্ভে বিলীন হওয়া মুলফৎগঞ্জ হাসপাতালের পুনর্নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে নড়িয়ার মুলফৎগঞ্জ বাজারসংলগ্ন নদীর পারে ঢাকার নড়িয়া উপজেলা পেশাজীবী পরিষদের পক্ষ থেকে নদীভাঙনকবলিত দুর্গতদের দিনব্যাপী বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান

ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এনামুল হক শামীম বলেন, সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে গত বর্ষায় নড়িয়ার মানুষ নদীভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। আর যে ২২০ মিটার এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা আগামী দুই মাসের মধ্যে ভরাট করে তাদের পুনর্বাসন করা হবে। এ ছাড়াও সরকার আগামী বর্ষাকে সামনে রেখে নড়িয়াসহ সারাদেশের নদীভাঙনপ্রবণ এলাকার মানুষদের নদীভাঙনের হাত থেকে রক্ষার জন্য আগাম প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) আবদুল্লাহ হারুন পাশা, নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জয়ন্তী রূপা রায়, ঢাকার নড়িয়া উপজেলা পেশাজীবী পরিষদ কমিটির আহ্বায়ক নুরে হেলাল, সদস্য সচিব ডা. ফারুক শেখ প্রমুখ।

মেডিক্যাল ক্যাম্পে নড়িয়ার ভাঙনকবলিত দুস্থ সহস্রাধিক রোগীকে বিনামূল্যে ওষুধসহ চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়। ক্যাম্প উদ্বোধনের আগে মন্ত্রী চরাত্রা, নওয়াপাড়া, সুরেশ্বর ও মুলফৎগঞ্জ এলাকা এবং পদ্মার ডান তীর রক্ষাবাঁধ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন।

advertisement