advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভূমি অধিগ্রহণেই হোঁচট

গোলাম রাব্বানী
৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:১২
advertisement

২০১০ সালে নিমতলী এবং গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকা-ের পরই পুরান ঢাকার কেমিক্যাল কারখানা নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার দাবি ওঠে। এ পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প করপোরেশনের (বিসিক) মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করে সরকার। বৈধ কেমিক্যাল কারখানা এবং কেমিক্যাল ব্যবসায়ীদের জন্য স্থায়ী কারখানা ও গুদাম নির্মাণে মুন্সীগঞ্জে হচ্ছে কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক। তবে ভূমি অধিগ্রহণেই হোঁচট খেয়েছে বিসিক। অর্থসংকটে পড়ায় দ্রুততার ভিত্তিতে চলতি অর্থবছরের বরাদ্দের অতিরিক্ত ৮২০ কোটি টাকা চেয়ে পরিকল্পনা কমিশনে চিঠি দিয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়।

গত ২৯ অক্টোবর পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, মুন্সীগঞ্জে বিসিকের বাস্তবায়নাধীন কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক (প্রথম সংশোধিত) প্রকল্পের জন্য ৩০৮ দশমিক ৩৩ একর ভূমি অধিগ্রহণ করা হবে। গত ২৭ অক্টোবর প্রস্তাবটি ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদনও দেওয়া হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কাছে জমির সমুদয় মূল্য বাবদ অর্থ পরিশোধ করতে হবে। সংশোধিত উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব অনুযায়ী এ প্রকল্পে ভূমি অধিগ্রহণ বাবদ প্রয়োজন ১ হাজার ২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জেলা প্রশাসককে ১০৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকা অগ্রিম দেওয়া হয়েছে। চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) প্রকল্পটির অনুকূলে বরাদ্দ রয়েছে ৮০ কোটি টাকা। তাই জমির মূল্য বাবদ মূলধন খাতে ৮২০ কোটি ৫৩ লাখ টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দ জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োজন।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনা কমিশনের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান, কোনো একটি প্রকল্পে একবারেই এত টাকা বরাদ্দ দেওয়ার মতো তহবিল আছে কিনা সেটি আগে দেখা হয়। তা ছাড়া প্রকল্পটির গুরুত্বের কথা বিবেচনায় প্রয়োজনে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে বিশেষ বরাদ্দের জন্যও অনেক সময় চিঠি লিখতে পারে পরিকল্পনা কমিশন।

সূত্র জানায়, প্রথম দিকে কেমিক্যাল পল্লী-ঢাকা নামে একটি প্রকল্প হাতে নেয়

বিসিক। দুর্ঘটনা রোধসহ আবাসিক এলাকা থেকে কেমিক্যাল কারখানা গোডাউন অপসারণের জন্য ঢাকার কেরানীগঞ্জে ৫০ একর জমিতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধাসংবলিত একটি কেমিক্যাল পল্লী স্থাপনেরও সিদ্ধান্ত হয়েছিল। এ জন্য মোট ২০১ কোটি ৮১ লাখ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে ২০১৮ সালের ৩০ অক্টোবর প্রকল্পটি অনুমোদন দেয় একনেক। কিন্তু গত ফেব্রুয়ারি পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টা এলাকায় কেমিক্যাল গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকা- নতুন করে ভাবায়। তাই আবাসিকে থাকা সব ধরনের রাসায়নিক কারখানা গোডাউন স্থানান্তরের জন্য বিসিক কেমিক্যাল পল্লীটি আরও বড় পরিসরে এবং তুলনামূলক কম জনবহুল এলাকায় স্থাপনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। সে জন্য অনুমোদিত প্রকল্পটি কেরানীগঞ্জের পরিবর্তে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার তুলসীখালী ব্রিজ সংলগ্ন গোয়ালিয়া, চিত্রকোট ও কামারকান্দায় মোট ৩০৮ একর জমিতে স্থাপনের জন্য সংশোধন করা হয়।

advertisement