advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সমতায় ফিরলইংল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক
৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:১৩
advertisement

নেপিয়ারে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে তৃতীয় উইকেট জুটিতে মাত্র ৭৬ বল মোকাবিলা করে ১৮২ রান করেন ইংল্যান্ডের ডেভিড মালান ও অধিনায়ক ইয়েন মরগান। যার মাধ্যমে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তৃতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ড গড়েন তারা। মালান অপরাজিত ১০৩ ও মরগান ৯১ রান করেন। তাদের দুজনের ব্যাটিং তা-বে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে ৭৬ রানে হারাল ইংল্যান্ড। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-২ সমতা আনল ইংলিশরা। জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করেছিল ইংল্যান্ড। তবে পরের দুম্যাচ জিতে সিরিজে লিড নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড।

নেপিয়ারে সিরিজ বাঁচানোর মিশনে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। শুরুটা ভালো হয়নি তাদের। দলীয় ১৬ রানে এবং ব্যক্তিগত ৮ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরেন ওপেনার জনি বেয়ারস্টো। ২০ বলে ৩১ রানে থেমে যান টম বান্টন। দলীয় ৫৮ রানে ২ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড।

এর পর অষ্টম ওভারের তৃতীয় বলে জুটি বাঁধেন মালান-মরগান। ব্যাট হাতে নিউজিল্যান্ডের বোলারদের ওপর ছড়ি ঘুরিয়েছেন তারা। চার-ছক্কার ফুলঝুরি ফোটান মালান-মরগান দুজনই। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ইংল্যান্ডের পক্ষে দ্রুত হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ডের মালিক হন মরগান। ইংল্যান্ডের পক্ষে ২২ বলে দ্রুত হাফ-সেঞ্চুরি করেছিলেন জশ বাটলার। মালান-মরগানের ব্যাটিং-নৈপুণ্যে ১৬ ওভার শেষে ২ উইকেটে ১৬৫ রানে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। শেষ ৪ ওভারে আরও বেশি ভয়ঙ্কর রূপ নেন মালান-মরগান। শেষ ৪ ওভারে ৭৬ রান তুলে ইংল্যান্ড, যা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যে কোনো দলের সর্বোচ্চ রান।

নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্টকে ছক্কা মেরে ৪৮তম বলে সেঞ্চুরির স্বাদ নেন তিনি। ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরির দেখা পান মালান। শেষ ওভারের চতুর্থ বলে মরগান আউট হন। ৭টি করে চার-ছক্কায় ৪১ বলে ৯১ রান করেন তিনি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এটি সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান মরগানের। তৃতীয় উইকেটে মালান-মরগান ৭৬ বল মোকাবিলা করে ১৮২ রানের জুটি গড়েন। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তৃতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ রানের বিশ্বরেকর্ড গড়েন তারা। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ২৪১ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় ইংল্যান্ড, যা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। ইংলিশদের আগের সর্বোচ্চ দলীয় রান ছিল ১৯ দশমিক ৪ ওভারে ৮ উইকেটে ২৩০। জয়ের জন্য ২৪২ রানের লক্ষ্যে মারমুখী মেজাজে শুরু করেন নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও কলিন মুনরো। ২৭ বলে ৫৪ রান তুলে ফেলেন তারা। কিন্তু এর পরই ছন্দপতন ঘটে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং লাইনআপে। গাপটিল-মুনরোর দেখানো পথে হাঁটতে পারেননি দলের পরের দিকের ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ৮৯ রানে ষষ্ঠ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ হারের পথ দেখে ফেলে নিউজিল্যান্ড।

শেষ পর্যন্ত ১৯ বল বাকি থাকতে ১৬৫ রানে গুটিয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস। ইংল্যান্ডের লেগ-স্পিনার ম্যাট পারকিনসন ৪৭ রানে ৪ উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন ইংল্যান্ডের মালান।

advertisement